নিউক্যাসল: হাডার্সফিল্ডের বিরুদ্ধে ৩-০ গোলে জয় দিয়ে নতুন মরশুমের প্রিমিয়র লিগ অভিযান শুরু করেছিল চেলসি৷ উত্তেজক পরের ম্যাচে আর্সেনালকে ৩-২ গোলে পরাজিত করে দ্য ব্লুজ৷ তৃতীয় ম্যাচে কষ্ট করে  হলেও নিউক্যাসল ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে ২-১ গোলে জয় তুলে নিল মৌরিজিও সারি’র ছেলেরা৷ সেদিক থেকে প্রিমিয়র লিগের শুরুতেই জয়ের হ্যাটট্রিক করল চেলসি৷

আরও পড়ুন: স্পনসরের দাদাগিরিতে মারাদোনা স্টেডিয়ামের নামবদল

Advertisement

পেনাল্টি থেকে চেলসির হয়ে প্রথম গোল করেন ইডেন হ্যাজার্ড৷ জোসেলুর গোলে ম্যাচে সমতা ফেরায় নিউক্যাসল৷ শেষে নিউক্যাসলের মার্কিন তারকা ডি’আন্দ্রে ইয়েদলিন আত্মঘাতী গোল করে বসায় ম্যাচে কাঙ্খিত জয় পেয়ে যায় চেলসি৷

আরও পড়ুন: রোনাল্ডোর পায়ে গোলের অপেক্ষায় ফুটবল দুনিয়া

চেলসি ভাগ্যের সাহায্য না পেলে ম্যাচের ছবিটা অন্যরকম হতে পারত৷ প্রথমার্ধ জুড়ে তুল্যমূল্য ফুটবল খেলার পর দু’দল বিরতিতে যায় ম্যাচ গোলশূন্য ড্র রেখে৷ দ্বিতীয়ার্ধে চেলসি আক্রমণর তীব্রতা বাড়ায়৷ ৭২ মিনিটে নিউক্যাসলের গোলমুখ প্রায় খুলে ফেলেছিলেন অ্যান্তোনিও রুডিগার৷ ২৫ গজ দূর থেকে নেওয়া জার্মান তারকার জোরালো শট ক্রসবারে লেগে প্রতিহত হয়৷

আরও পড়ুন: লিভারপুলের জয়ের হ্যাটট্রিক, প্রথম জয় আর্সেনালের

সে যাত্রায় গোল না পেলেও মিনিট তিনেকের মধ্যেই পেনাল্টি পেয়ে যায় চেলসি৷ ৭৬ মিনিটে স্পট কিক থেকে গোল করে দলকে ১-০ এগিয়ে দেন হ্যাজার্ড৷ ৮৩ মিনিটে ইয়েদলিনের পাস থেক গোল করে নিউক্যাসলকে ১-১ সমতায় ফেরান জোসেলু৷

আরও পড়ুন: প্রিমিয়র লিগে মজে টিম ইন্ডিয়া

৮৭ মিনিটে অলোনসোর শটে পা ছুঁয়ে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে বসেন ইয়েদলিন৷ উইলিয়ানের ফ্রি-কিকে ভাসানো বল হেডে পিছনে থাকা অলোনসোর দিকে বাড়িয়ে দেন জিরুদ৷ তাঁর ডান পায়ের দূরপাল্লার শট পোস্টের বাইরে যাচ্ছিল৷ তবে গতিশীল বলে পা ছুঁইয়ে বসেন ইয়েদলিন৷ ফলে বল গতিমুখ পরিবর্তন করে নিউক্যাসলের জালে জড়িয়ে যায়৷ চেলসি ম্যাচে ২-১ গোলে এগিয়ে যায়৷ বাকি সময়ে ম্যাচের স্কোরলাইনে আর কোনও বদল হয়নি৷

----
--