স্টাফ রিপোর্টার: সাফল্যে তুমি সিংহাসনে, হারলে তুমি গদি ছাড়ো! বিশ্বফুটবলে সাফল্য দিতে না পারায় কোচদের কাঁটার মুকুট পড়িয়ে সিংহাসনচ্যুত করার ঘটনা নতুন কিছু নয়৷ এবার সিংহাসন হারালেন চেলসির ম্যানেজার অ্যান্তনিও কন্তে৷ প্রিমিয়র লিগের ক্লাবের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে৷ কন্তের নাটকীয় বিদায় অবশ্য অনেক প্রশ্ন তুলে দিয়ে গেল৷

সাফল্য দিতে না পারলেই গদি ছাড়তে হবে, একথা নতুন কিছু নয়৷ কিন্তু সাফল্যের শিখরে থাকা কোচ এক মরশুম কক্ষপথ চ্যুত হলেই তাঁর বিদায় ঘন্টা বেজে যাবে এভাবে! ন্যূনতম সম্মানটুকু কী প্রাপ্য নয় কোচের৷ যে কোচের হাত ধরে ২০১৬-২০১৭ মরশুমে প্রিমিয়র লিগ চ্যাম্পিয়ন হল চেলসি, সেই কোচেরই চাকরী গেল এক নিমেষে, এখনও ১২ মাসের চুক্তি থাকা সত্ত্বেও ছাঁটাই হলেন কন্তে৷ প্রিমিয়র লিগের ইতিহাসে শতকরা জয়ের বিচারে দু’নম্বরে রয়েছেন ইতালীয় কোচ৷ একে রয়েছেন পেপ গুয়ার্দিওয়ালা৷

Advertisement

২০১৬-১৭ মরশুমে কন্তের কোচিংয়ে প্রিমিয়র লিগে ৩০টি ম্যাচ জিতেছে চেলসি(শতকরা জয়ের হার ৬৭.১%) আর ২০১৭-১৮ মরশুমে গুরু গুয়ার্দিওয়ালার কোচিংয়ে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি জয় পেয়েছে ৩২ ম্যাচে (শতকরা জয়ের হার ৭২.৮%)৷ চেলসির কোচ হিসেবে প্রিমিয়র লিগের এক মরশুমে অ্যালেক্সে ফার্গুসনের শতকরা জয়ের হার(৬৫.২%)কেও টপকে যান কন্তে৷ তাঁর কোচিংয়ে দুই বছরে ১০৬টি ম্যাচের মধ্যে ৬৯টি ম্যাচ জিতেছে চেলসি৷ ড্র করেছে ২০টি ম্যাচ৷

সফল কন্তেরই বিদায় তাই ভ্রু কুচকাচ্ছেন অনেকে৷ কারণ শেষ মরশুমে তাঁর কোচিংয়ে এক নয়, পাঁচ নম্বরে শেষ করেছে হ্যাজর্ডরা৷ এতেই কোচ বিদায়ের দেওয়াল লিখন হয়ে যায়৷ এমন যুক্তি দেখে অবাক ফুটবল দুনিয়া৷ ক্লাবের পক্ষ থেকে ইতালিয়ান কোচের বিদায় নিয়ে অফিশিয়াল কোনও মন্তব্যও করা হয়নি৷ দায়সাড়া ভাবেই কন্তের বিদায়ের খবর জানানো হয়েছে৷ অন্তত নূন্যতম ফেয়ারওয়েল কি প্রাপ্য ছিল না কন্তের? প্রশ্ন কিন্তু উঠছেই৷

ক্লাব কন্তেকে সন্মান দিতে না পারলেও টুইটে গুরুকে সন্মান জানালেন শিষ্যরা৷ চেলসির মিডফিল্ডার ফ্যাব্রিগাস টুইটে লিখেছেন, ‘প্রিমিয়র লিগ ও এফ এ কাপের ট্রফিটা দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ৷ তোমার থেকে অনেক কিছু শিখেছি কোচ৷ ভবিষ্যতের জন্য অনেক শুভেচ্ছা রইল৷’ চেলসির অন্যতম সেরা প্রাক্তন ফুটবলার জন টেরিও কন্তের আগামী দিনের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছেন৷

----
--