কলকাতা: ভারতীয় ক্রিকেটের আধুনিক ‘ওয়াল’ বলা হচ্ছে তাঁকে৷ দ্রাবিড়ের যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করে চলেছেন মিডল অর্ডারের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান চেতেশ্বর পূজারা৷ বৃহস্পতিবার অ্যাডিলেডে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে প্রথম শতরান হাঁকিয়ে ফেললেন৷ সেটাও এমন একটা সময় যেখানে ৪১/৪ ভারত ধুঁকছিল৷ পূজারার ব্যাটের ১২৩ রানের ইনিংসে ভর করে সম্মানজনক আড়াশো রানের গণ্ডি ছোঁয় ভারত৷

সেই পূজারাকে নিয়ে এবার পথ সচেতনতামূলক প্রচারে নামল কলকাতা পুলিশ৷ পুজারার ডিফেন্সকে হাতিয়ার করা হয়েছে কলকাতা ট্রাফিক পুলিশের সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ ক্যাম্পনে৷ কী সেই স্লোগান?

কলকাতা ট্রাফিক পুলিশের টুইটারে এদিন লেখা হয় ‘ডিফেন্স হোক পূজারার মতো৷’ পথ সচেতনতা বৃদ্ধিতে এমন স্লোগান তৈরি করে চমক দেওয়া হয়েছে৷ এই টুইটের সঙ্গে পূজারার সেঞ্চুরির ছবি ও সিটবেল্ট ব্যবহার করে গাড়ি চালানোর একটি ছবির কোলাজ পোস্ট করা হয়েছে৷ স্লোগানের মধ্যে দিয়ে, ড্রাইভ করার সময় চালকদের ঝুঁকিহীন থাকার অনুরোধ করা হয়েছে৷ সেক্ষেত্রে কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে পূজারার ঝুঁকিহীন ডিফেন্স থেকেই শিক্ষা নেওয়ার বার্তা দেওয়া হয়েছে৷

এর আগে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে বুমরাহের নো বলকে ট্রাফিক সিগন্যাল মানার সঙ্গে জুড়ে দিয়ে প্রচার করেছিল জয়পুর ট্রাফিক পুলিশ৷ উল্লেখ্য চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে বুমরাহের বলে আউট হলেও নো বলের কারণে দ্বিতীয় সুযোগ পান পাকিস্তানের ফকহর জামান৷

সেই সুযোগেই শতরান হাঁকিয়েছিলেন ফকহার৷ আর ফকহারের সেই শতরানই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছিল৷ ফাইনাল হেরেছিল ভারত৷ম্যাচ হারের জন্য বুমরাহের নো বলকে কাঠগড়ায় তোলা হয়েছিল৷ সেই প্রসঙ্গের সঙ্গে তুলনা টেনে জয়পুর পুলিশের পথসচেতনামূলক প্রচারে লেখা হয়েছিল, জেব্রা কসিং পার করলেই বিপদের মুখে পড়তে হতে পারে৷ অর্থাৎ বুমরাহের মতো ওভারস্টেপ করলে লাইন ক্রস করলেই বড়ো ক্ষতিপূরণ দিতে হতে পারে৷

----
--