অভিনেত্রীর চিকেন পক্স, আপনি কীভাবে এড়াবেন?

হলিউডের অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলি৷

হলিউডের অভিনেত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলি-ও চিকেন পক্সে আক্রান্ত হয়েছিলেন৷ অথচ, চিকেন পক্সে সংক্রমণের পরে যেমন সুস্থ হয়ে ওঠাটা কোনও সমস্যা নয়৷ এবং, এক বার আক্রান্ত হওয়ার পরে যেমন অধিকাংশ ক্ষেত্রে দ্বিতীয় বার আর চিকেন পক্সে সংক্রমণের সম্ভাবনাও থাকে না৷ তেমনই, এই বিষয়ে সাধারণ মানুষের বিভিন্ন অংশে আবার বিভিন্ন ধরনের ভ্রান্ত ধারণাও কম নেই৷

পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ মানুষের বিভিন্ন অংশে এমন ধারণা রয়েছে যে, শীতের শেষ এবং বসন্ত ঋতুর শুরুর সময়েই চিকেন পক্সের সংক্রমণ হতে পারে৷ যদিও, বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুধুমাত্র নির্দিষ্ট ওই সময়েই নয়৷ বছরের যে কোনও সময়ে চিকেন পক্সের সংক্রমণ ঘটতে পারে৷ স্বাভাবিক ভাবেই, কলকাতা সহ এ রাজ্যের বিভিন্ন অংশে এই জুলাই মাসেও চিকেন পক্সে আক্রান্তের সংখ্যা কম নয়৷

ডাক্তার স্বপনকুমার জানা৷
ডাক্তার স্বপনকুমার জানা৷

বছরের বিভিন্ন সময় কেন চিকেন পক্সে সংক্রমণের সম্ভাবনা থেকে যায়? আক্রান্ত হলে কেন-ই-বা আতঙ্কের কোনও কারণ নেই? কীভাবে সুস্থ হওয়া সম্ভব? আর, চিকেন পক্স যাতে না হয়, তার জন্য-ই-বা কী করণীয়? এমনই বিভিন্ন বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য উঠে এল কলকাতা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ওষুধবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক তথা সোসাইটি ফর সোশ্যাল ফার্মাকোলজির সংগঠক ডাক্তার স্বপনকুমার জানা-র সঙ্গে www.kolkata24x7.com-এর প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ ঘোষ-এর কথোপকথনে৷

- Advertisement -

প্রশ্ন: সাধারণ মানুষের বিভিন্ন অংশে এমন ধারণা রয়েছে যে, শীতের শেষ আর বসন্তের শুরুর সময় চিকেন পক্সে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে…
উত্তর: এই ধারণা সঠিক নয়৷ বছরের যে কোনও সময়েই চিকেন পক্স হতে পারে৷

প্রশ্ন: কেন?
উত্তর: বাতাসে জলীয় বাষ্পের মাত্রা বেশি থাকলে চিকেন পক্সে সংক্রমণের সম্ভাবনাও বেশি থাকে৷ কারণ, জলীয় বাষ্পের মাত্রা বেশি থাকলে চিকেন পক্সের ভাইরাস ভ্যারিসেলা জস্টার-ও বেশি মাত্রায় ছড়িয়ে পড়ে৷ তার উপর, এই ভাইরাস বাতাসবাহিত জীবাণু৷ যে কারণে, সহজেই বাতাসের মাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে৷

আরও পড়ুন: সন্তানের পরিচয় জানাতে প্রথমেই আসুক মায়ের নাম!

প্রশ্ন: তা হলে, এই বিষয়টি যথেষ্ট আতঙ্কের?
উত্তর: আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই৷ শরীরের রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা দূর্বল হয়ে পড়লে চিকেন পক্সে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে৷ আর, চিকেন পক্সে আক্রান্ত হলেও নিজে থেকেই সুস্থ হয়ে ওঠা যায়৷ প্রয়োজনে অবশ্য ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চলতে হবে৷ তবে, প্রসূতিদের ক্ষেত্রে চিকেন পক্সের প্রভাব মারাত্মক হওয়ার আশঙ্কা থাকে৷

প্রশ্ন: কেন!!
উত্তর: চামড়ার কোষ এবং চামড়া লাগোয়া স্নায়ুতে চিকেন পক্সের ভাইরাস বংশবৃদ্ধি করতে ভালোবাসে৷ কোনও প্রসূতি যদি চিকেন পক্সে আক্রান্ত হন, তা হলে তাঁর ক্ষেত্রে বয়স্কদের মতো সমস্যা দেখা দেবে৷ কিন্তু, তাঁর গর্ভস্থ সন্তানের ক্ষেত্রে মারাত্মক সমস্যা দেখা দেবে৷ কোন ধরনের মারাত্মক সমস্যা দেখা দেবে, সেই বিষয়টি গর্ভস্থ সন্তানের বয়সের উপর নির্ভর করবে৷

প্রশ্ন: যেমন…
উত্তর: গর্ভসঞ্চারের সময় থেকে তিন মাসের মধ্যে কোনও প্রসূতি চিকেন পক্সে আক্রান্ত হলে, সর্বাধিক মারাত্মক প্রভাব হিসেবে তাঁর গর্ভস্থ সন্তানের মৃত্যু হতে পারে৷cp.02

প্রশ্ন: আর, অন্য সমস্যাগুলি…
উত্তর: অন্য সমস্যাগুলির মধ্যে যেমন গর্ভস্থ সন্তানের মস্তিষ্কের গঠন না-ও হতে পারে৷ তেমনই, গর্ভস্থ সন্তানের স্নায়ু শুকিয়ে যাওয়ার কারণে তার মস্তিষ্ক, চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে৷ কোনও প্রসূতি চিকেন পক্সে আক্রান্ত হলে, তাঁর গর্ভস্থ সন্তানের বিভিন্ন ধরনের জন্মগত ত্রুটিও দেখা দিতে পারে৷

প্রশ্ন: শিশুদের ক্ষেত্রে কোন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়?
উত্তর: পাঁচ থেকে সাত বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের ক্ষেত্রে চিকেন পক্সে আক্রান্তের ঘটনা খুবই কম দেখা যায়৷ কেন কম হয়, তার জন্য এখনও পর্যন্ত তথ্য পাওয়া যায়নি৷ তবে, শিশু হোক অথবা বয়স্ক, এক বার চিকেন পক্সে আক্রান্ত হলে দ্বিতীয় বার আর সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকে না৷

প্রশ্ন: দ্বিতীয় বার কেন সংক্রমণের সম্ভাবনা থাকে না?
উত্তর: এক বার সংক্রমণের কারণে আক্রান্তের শরীরে চিকেন পক্সের ভাইরাস প্রতিরোধী চিরস্থায়ী ব্যবস্থা গড়ে ওঠে৷ যে কারণে, ৯০ শতাংশ ক্ষেত্রে দ্বিতীয় বার চিকেন পক্স হয় না৷

আরও পড়ুন: প্রথার নামে প্রকাশ্যে গণধর্ষণ যেখানে এখন এক খেলা!

প্রশ্ন: কোন বয়সে চিকেন পক্সে সংক্রমণের সম্ভাবনা বেশি থাকে?
উত্তর: পাঁচ থেকে সাত বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের ক্ষেত্রে চিকেন পক্সে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা কম দেখা যায়৷ তবে, এক বার চিকেন পক্স হওয়ার পরে যেহেতু ৯০ শতাংশ ক্ষেত্রে দ্বিতীয় বার আর চিকেন পক্স হয় না, সেই জন্য বড়দের তুলনায় চার থেকে ১০ বছর বয়সিদের মধ্যেই চিকেন পক্সে সংক্রমণের সম্ভাবনা বেশি থাকে৷

প্রশ্ন: কীভাবে বোঝা যাবে চিকেন পক্সের সংক্রমণ ঘটেছে?
উত্তর: চিকেন পক্সের ভাইরাসের সংক্রমণের জন্য জ্বর হবে৷ সঙ্গে ম্যাজ ম্যাজ ভাব, গা-হাত-পা ব্যথা, খিদে কমে যাওয়া, বমি বমি ভাব দেখা দেবে৷ আক্রান্তের বিরক্তি ভাবও প্রকাশ পেতে পারে৷ আর, শরীরের বিভিন্ন অংশে জলভরা ফুস্কুরি বের হবে৷ এই ফুস্কুরি গুচ্ছ গুচ্ছ অথবা ছড়িয়ে ছিটিয়ে বের হতে পারে৷ সাধারণত মুখ, হাত, পা এবং মাথার চামড়ায় এই জলভরা ফুস্কুরি বের হয়৷ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেখা যায় যে, জ্বর সেরে যাওয়ার পরে ফুস্কুরি বের হয়েছে৷

আরও পড়ুন: হাসপাতালে বেড না মিললে পৌঁছে যেতে হবে কালীঘাটে!

প্রশ্ন: সুস্থ হওয়ার জন্য কী করণীয়?
উত্তর: চিকেন পক্স হলে আপনা থেকেই সেরে যায়৷ তবে, আক্রান্তকে বিশ্রাম নিতে হবে৷ চিকেন পক্সে আক্রান্তের জন্য বাড়িতে পৃথক ঘরের ব্যবস্থা হলে ভালো হয়৷ সহজপাচ্য খাবার খেতে হবে৷ স্নান করা যাবে৷ তবে, সাবান এবং তেলের ব্যবহার করা উচিত নয়৷ চিকেন পক্সে আক্রান্ত হলে অফিস বা প্রয়োজনীয় অন্য কাজকর্মও করা যায়৷ তবে, আক্রান্ত যদি ঘরের বাইরে বের হন, তা হলে অন্যদের মধ্যে চিকেন পক্স ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকে৷ চিকেন পক্সের কারণে শারীরিক দূর্বলতাও দেখা দেয়৷ যে কারণে, তিন সপ্তাহ না হলেও অন্তত দুই সপ্তাহ বিশ্রাম নেওয়া উচিত৷

প্রশ্ন: আর, ওষুধ…?
উত্তর: জ্বরের জন্য প্যারাসিটামল খেতে হবে৷ প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে৷

প্রশ্ন: অ্যান্টিবায়োটিকের প্রয়োজন রয়েছে?
উত্তর: বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই অযৌক্তিক অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার হচ্ছে৷ তবে, নিজে থেকে কোনও অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়া উচিত নয়৷ ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ খেতে হবে৷cp.01

আরও পড়ুন: মাস্ক নয় নিজে থেকেই সেরে যায় সোয়াইন ফ্লু

প্রশ্ন: ফুস্কুরি শুকিয়ে যাওয়ার পরে যদি চামড়ার উপর দাগ থেকে যায়?
উত্তর: চিকেন পক্সের জলভরা ফুস্কুরি শুকিয়ে যাওয়ার পরে কোনও দাগ থাকে না৷ তবে, যদি ফুস্কুরিতে অন্য কোনও জীবাণুর সংক্রমণ ঘটে, সেক্ষেত্রে গভীর ক্ষত তৈরি হয় এবং দাগ থেকে যায়৷ দাগ সারিয়ে তুলতে হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে৷

প্রশ্ন: ফুস্কুরি শুকিয়ে যাওয়ার পরে, সেখানকার কোনও অংশের মাধ্যমে কি চিকেন পক্সের সংক্রমণ ছড়াতে পারে?
উত্তর: শুকিয়ে যাওয়া ফুস্কুরির খোসায় চিকেন পক্সের ভাইরাস থাকে৷ তবে, ওই খোসায় অথবা না শুকানো ফুস্কুরির ছোঁয়া লাগলেই যে চিকেন পক্স হবে, তা-ও নয়৷ বাতাসের জলকণার মধ্যে চিকেন পক্সের ভাইরাস থাকে৷ শ্বাসপ্রশ্বাসের সময় শ্বাসনালির মাধ্যমে সংক্রমণ ঘটে৷

প্রশ্ন: চিকেন পক্সে যাতে আক্রান্ত হতে না হয়, তার জন্য কী করণীয়?
উত্তর: শরীরের রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা দূর্বল হয়ে পড়লে চিকেন পক্সেও আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে৷ যে কারণে, শরীরের রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা যাতে দূর্বল হয়ে না পড়ে, তার জন্য সুষম খাবার খাওয়া প্রয়োজন৷ এর সঙ্গে নিয়মিত শরীরচর্চা করলে সুস্থভাবে জীবনযাপন করা সম্ভব৷

আরও পড়ুন: সরকারি নির্দেশেই অকেজো মাল্টি-সুপার হাসপাতাল

প্রশ্ন: চিকেন পক্স এড়ানোর জন্য প্রতিষেধকের ভূমিকা কেমন?
উত্তর: চিকেন পক্সের প্রতিষেধক অর্থাৎ, টিকা নিলেই যে সংক্রমণ ঘটবে না, তাও নয়৷ তবে, প্রতিষেধক নেওয়া থাকলে চিকেন পক্সে সংক্রমণের তীব্রতা কম হবে৷ যে সব দেশের বাসিন্দারা চিকেন পক্সে আক্রান্ত হওয়ার মতো বিপজ্জনক পরিস্থিতির মধ্যে বসবাস করেন, তাঁদের জন্য প্রতিষেধক দেওয়া হয়৷

প্রশ্ন: চিকেন পক্সের কারণে প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে?
উত্তর: তথ্য বলছে, ২০১৩-য় গোটা বিশ্বের ১৪০ মিলিয়ন মানুষ চিকেন পক্সে আক্রান্ত হয়েছিলেন৷ চিকেন পক্সে সাধারণত মৃত্যু হয় না৷ তবে, ৬০ হাজার আক্রান্তের মধ্যে এক জনের মৃত্যু হতে পারে৷ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে চিকেন পক্স অর্থাৎ, জলবসন্তে সংক্রমণের ঘটনা দেখা গেলেও, স্মল পক্স অর্থাৎ, গুটিবসন্ত এখন আর নেই৷ ১৯৭৭-এ সোমালিয়ায় গুটিবসন্তের সর্বশেষ আক্রান্তের খোঁজ মিলেছিল৷

_________________________________________________________________

আরও পড়ুন:
(০১) পূর্ব ভারতের বিরল নজিরে রক্ষা পেল কিশোরীর প্রাণ
(০২) মুমূর্ষুর প্রাণরক্ষায় ক্যাসুয়ালটি ব্লক চাইছেন ডাক্তাররা
(০৩) ‘বৈপ্লবিক উন্নয়নে’ও ভরসা নেই সরকারি হাসপাতালে!
(০৪) ভালোবাসার অধিকার প্রাপ্তির জন্য আর্জি প্রধানমন্ত্রীকে
(০৫) শাসকের দেউলিয়া রাজনীতিতে ডাক্তার-হাসপাতাল!
(০৬) দলবদলের সঙ্গেই বাতিল করতে হবে জনপ্রতিনিধি-পদ
(০৭) ন্যাপকিন ব্যবহার করেন না যৌনপল্লির ১৬% বাসিন্দা
(০৮) ৪.৫ কোটি ভুক্তভোগীতেও চাপা পড়ে যাবে সারদাকাণ্ড!
(০৯) কলকাতায় এ বার উবের ক্যাব চালাবেন যৌনকর্মীরা
(১০) ‘চিকিৎসায় উন্নয়নের নামে ভাঁওতা দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী’
(১১) ‘সারদার সত্যকে ধামাচাপা দিয়েছে মমতার সরকার’
(১২) সারদাকাণ্ডে এক সাংবাদিকের আত্মহত্যা এবং মিডিয়া

_________________________________________________________________

Advertisement ---
-----