কন্যাশ্রী দিবসের দিন চার নাবালিকার বিয়ে রুখল চাইল্ড লাইন

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: কন্যাশ্রী দিবসে চার নাবালিকার বিয়ে রুখল বাঁকুড়া জেলা চাইল্ড লাইন৷ মঙ্গলবার জেলার বিষ্ণুপুর, সিমলাপালে একটি করে ও ইন্দপুরে দু’জন নাবালিকা ছাত্রীর বিয়ে বন্ধ করে বড়সড় সাফল্য পেল এই চাইল্ড লাইন৷

আরও পড়ুন: মেডিক্যালের চিকিৎসকের ‘ভুল’, শিশুর বাঁ পায়ের বদলে ডান পায়ে অস্ত্রোপচার

জেলা চাইল্ড লাইন সূত্রে খবর, বিষ্ণুপুর শহরের একটি বেসরকারি লজে স্থানীয় পরিমল দেবী হাই স্কুলের এক ছাত্রীর বিয়ের তোড়জোড় চলছিল। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, চাইল্ড লাইনের কর্মীরা ওই লজে পৌঁছে যান। নাবালিকা ও তার বাবা-মা সহ উপস্থিত সকলের সঙ্গে কথা বলে বিয়ে বন্ধ করেন তারা। অন্যদিকে, সিমলাপালের পাহারিডাঙা গ্রামে প্রায় ১৬ বছর বয়সী এক ছাত্রীর বিয়ে বন্ধ করেন তারা। সে পার্শ্বলা হাইস্কুলে একাদশ শ্রেণীতে পড়াশোনা করে বলে জানা গিয়েছে।

- Advertisement -

এছাড়াও ইন্দপুরের গৌরবাজার হরিরামপুর ও নয়াদা গ্রামে চাইল্ড লাইনের কর্মী-আধিকারীকরা পৌঁছে দুই নাবালিকার বিয়ে বন্ধ করেন। গৌরবাজার হরিরামপুর গ্রামের নাবালিকা দশম শ্রেণীর ছাত্রী৷ নয়াদা গ্রামের নাবালিকা ইন্দপুর গোয়েঙ্কা হাই স্কুলে দ্বাদশ শ্রেণীতে পড়াশোনা করে বলে জানা গিয়েছে৷ প্রতিটি ক্ষেত্রেই উপস্থিত চাইল্ড লাইনের কর্মী-আধিকারিকরা নাবালিকা সহ তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে আলাদা আলাদা ভাবে কথা বলেন৷

আরও পড়ুন: নির্দোষ প্রমাণিত হয়ে দলে ফিরলেন স্টোকস

কম বয়সে বিয়ে দিলে কি কি মারাত্মক রকমের ক্ষতি হতে পারে তা বোঝানোর পাশাপাশি নানা প্রকার আইনি সমস্যার কথাও বোঝান এই চাইল্ড লাইনের সদস্যরা৷ বোঝার পর চার পরিবারই বিয়ে বন্ধ ও আঠারো বছর বয়সের আগে মেয়েদের বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকা দিতে বাধ্য হয়। এই ঘটনার পর চাইল্ড লাইনের এই ধারাবাহিক উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন অনেকেই। পাশাপাশি কন্যাশ্রী দিবস পালনের দিনই এতো বড় সাফল্য পাওয়ায় খুশি সকলেই।

Advertisement
---