সুবিশাল বিমান তৈরি করতে হাতে হাত মেলাল চিন-রাশিয়া

মস্কো-বেজিং:  রাশিয়া ও চিন যৌথভাবে যাত্রীবাহী বিশাল বিমান তৈরির প্রতিযোগিতায় নেমেছে। সম্প্রতি ‘এয়ারশো চায়না’য় মডেল বিমান প্রদর্শন করেছে চিন এবং রাশিয়া। বিশ্বে যাত্রীবাহী প্রশস্ত বিমান তৈরির সংস্থা এয়ারবাস ও বোয়িংয়ের সঙ্গে প্রতিযোগিতার উদ্দেশ্যে এই প্রচেষ্টা শুরু করেছে বেজিং ও মস্কো।

এই বিমান তৈরির কাজে জড়িত রয়েছে রাশিয়ার ইউনাইটেড কর্পোরেশন এবং কমার্শিয়াল এয়ারক্রাফট কর্পোরেশন অব চায়না বা সিওএমএসি। অবশ্য প্রশস্ত বিমানের কারিগরি বা আর্থিক বিষয়ে বিশদ কোনও তথ্য এখনও প্রকাশ করা হয় নি।

- Advertisement -

মার্কিন সংস্থা হনিওয়েল এবং ইউনাইটেড টেকনোলজিস কর্পোরেশন বিমান নির্মাণের উপাদান সরবরাহের বিষয়ে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। এই নিয়ে তারা সিওএমএসি’র সঙ্গে আলাপও করেছে বলে জানানো হয়েছে।

২০২২ সালে চিন-রাশিয়ার যৌথ বিমান আকাশে উড়বে। এবং ২০২৫ সাল থেকে এই বিমান বিক্রি শুরুর লক্ষ্যমাত্রা স্থির করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ২৫০ থেকে ২৮০ আসনের ১২ হাজার কিলোমিটার পাল্লার বিমান তৈরি করা হবে। বিমানটি তৈরি হবে রাশিয়ায় এবং সংযোজন হবে চিনে। রুশ আইএল-৯৬ বিমানের নকশার ভিত্তিতে এটি নির্মিত হবে। তবে চারটির বদলে এতে দু’টি ইঞ্জিন থাকবে। রাশিয়া এরইমধ্যে বিমানের ইঞ্জিন নির্মাণের কাজ শুরু করেছে।

Advertisement
-----