উত্তরে নজর কাড়ল সরকার বিরোধী বামেদের মিছিল

স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: হয় শ্রমজীবী মানুষের স্বার্থে নীতি গ্রহণ করো না হলে মসনদ ছাড়ো। এই আওয়াজেই ৫ই সেপ্টেম্বর দিল্লি কাঁপাবেন শ্রমজীবী মানুষেরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জলপাইগুড়ি শহরে দিল্লির সমাবেশ সফল করার আহ্বান জানিয়ে এই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন সিআইটিইউ-র পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সম্পাদক অনাদি সাহূ। এদিন জলপাইগুড়ি রবীন্দ্র ভবনে শ্রমিক সমাবেশ শুরুর আগে মিছিলে পথ হাঁটে জলপাইগুড়ি। শহরের বিভিন্ন পথ পরিক্রমা করে এই মিছিল এসে পৌঁছয় রবীন্দ্র ভবনে। মিছিলে অনাদি সাহূ, জিয়াউল আলম, শঙ্কর বিশ্বাস প্রমুখ নেতৃত্ব দেন।

- Advertisement -

জলপাইগুড়ি জেলার বিভিন্ন চা বাগানের চা শ্রমিকদের সাথেই এদিনের এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন সংগঠিত অ সংগঠিত অগনিত শ্রমজীবী মানুষেরা। সমাবেশে অনাদি সাহু বলেন, কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের জনস্বার্থ বিরোধী নীতিগুলোর ফলে শ্রমিক কৃষক খেতমজুর সহ সাধারণ মানুষের জীবন অসহয়নীয় হয়ে পড়ছে। শ্রমজীবী মানুষের উপর শোষণের মাত্রা তীব্র থেকে তীব্রতর হচ্ছে। সম্পদের কেন্দ্রীভবন ঘটছে। শ্রমিক কৃষক খেতমজুরেরা কাজ হারাচ্ছেন। গোটা দেশ জুড়ে চলছে এক চরম অস্থিরতা। শ্রমজীবী মানুষের অর্জিত অধিকার হরণ করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন- শিক্ষারত্ন পুরস্কার পাচ্ছেন এই জেলার তিন কৃতী শিক্ষক-শিক্ষিকা

তিনি আরও জানিয়েছেন যে শ্রমজীবী মানুষের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন ভাঙতে ষড়যন্ত্র করছে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার। ধর্মের নামে, ভাষার নামে, জাতের নামে শ্রমিক কৃষক খেতমজুর সহ সাধারণ মানুষের ঐক্য ভাঙার চেষ্টা চলছে জোরকদমে। যেকোনো পরিস্থিতিতে বিভেদ বিচ্ছিন্নতার বিরুদ্ধে মানুষের চিরায়ত ঐক্য সংহতি সম্প্রীতি রক্ষার আবেদন জানান তিনি।

সমাবেশে সিআইটিইউর জলপাইগুড়ি জেলা সম্পাদক জিয়াউল আলম বলেন, ধর্ম নিয়ে রাজনীতির ধান্দাবাজি বন্ধ করার দাবিতে শ্রমিক কৃষকের ঐক্যবদ্ধ লড়াই শুরু হয়েছে। বিজেপি এবং তৃণমূল একই মুদ্রার এপিঠ-ওপিঠ। দিল্লির সরকার আর এই রাজ্যের সরকারের নীতি একই।

আরও পড়ুন- নৈহাটিতে পণ্য বোঝাই ট্রাক পিষে দিল সাইকেল আরোহীকে

তাঁর অভিযোগ চা শ্রমিকদের মজুরি রেশন নিয়ে টালবাহানা বন্ধ করা, কৃষি ও কৃষকের স্বার্থে নীতি গ্রহণ করা, খেতমজুরদের সামাজিক সুরক্ষা দেওয়া, নূন্যতম মজুরি ১৮০০০ টাকা করা, এন আর সি র নাম করে মেরুকরনের রাজনীতি বন্ধ করা সহ ২০ দফা দাবিতে ৫ ই সেপ্টেম্বর দিল্লি কাঁপাবেন শ্রমজীবী মানুষেরা । সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শঙ্কর বিশ্বাস, সুখমইত ওড়াঁও, মমতা রায়, সমীর ঘোষ, অরুণ পন্ডিত প্রমুখ । সভাপতিত্ব করেন রামলাল মুর্মু।

Advertisement ---
---
-----