পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠনেও সংঘর্ষ অব্যাহত

ছবি: প্রতীকী

দক্ষিণ ২৪ পরগনা ও কোচবিহার: পঞ্চায়েতের মনোনয়নপত্র জমাকে কেন্দ্র করে বাংলায় যে সংঘর্ষের আবহ তৈরি হয়েছিল বোর্ড গঠনেও তা অব্যাহত৷ উত্তরবঙ্গের দিনহাটা থেকে দক্ষিণবঙ্গের জয়নগর-সর্বত্রই দেখা গিয়েছে চোখ রাঙানির ছবি৷

দিনভর শান্তিপূর্ণ থাকলেও শেষবেলায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে দিনহাটা৷ দিনহাটার পেটলাবাজারে তিন তৃণমূল কর্মীকে মারধরের অভিযোগ ওঠে দলের যুব সংগঠনের কর্মীদের বিরুদ্ধে৷ আহতদের দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে যুব সংগঠনের সদস্যরা৷

আরও পড়ুন: জাতীয় সড়কে মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় পাঁচজনের মৃত্যু

- Advertisement -

মঙ্গলবার দিনহাটা-১ ব্লকের বিভিন্ন গ্রামপঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন ছিল৷ দিনহাটা-১ ব্লকের আটটি গ্রামপঞ্চায়েতের মধ্যে অধিকাংশই দখলে নেয় যুব সমর্থিত নির্দলরা। এ নিয়ে মূল দলের সঙ্গে তৃণমূলের যুব সংগঠনের একটা চাপানউতোর চলছিল বলেও সূত্রের খবর৷

এদিন বোর্ড গঠন ঘিরে কড়া পুলিশি ব্যবস্থা ছিল দিনহাটায়৷ পুলিশসুপার নিজে বিভিন্ন গ্রামপঞ্চায়েত ঘুরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখেন। এদিন আটিয়াবাড়ি-২ গ্রামপঞ্চায়েতের দখল নেয় তৃণমূল। সেখান থেকে বাড়ি ফেরার পথে পেটলাতে একটি হোটেলে খাবার খাচ্ছিলেন তিন তৃণমূল কর্মী৷ অভিযোগ সেখানেই তাঁদের উপর চড়াও হন যুব-কর্মীরা৷ মোটা লাঠি, বাঁশ দিয়ে বেধড়ক মারধরও করা হয়৷ যদি তৃণমূলের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে৷

আরও পড়ুন: বন্দি অপহরণের ছক বানচাল, পুলিশের জালে কুখ্যাত ৯ দুষ্কৃতী

অন্যদিকে জয়নগর থানার বহড়ু-ক্ষেত্র গ্রামপঞ্চায়েতে নতুন বোর্ড গঠনকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায়৷ মঙ্গলবার এই গ্রামপঞ্চায়েতে প্রধান, উপপ্রধান পদ নিয়ে ভোটাভুটি হওয়ার পরই পঞ্চায়েতের বাইরে কুলপি রোডে সংঘর্ষ শুরু হয়৷

অভিযোগ, নির্দল ও তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে এই সংঘর্ষ বাধে৷ পঞ্চায়েত অফিসের সামনে পুলিশবাহিনী মোতায়েন থাকলেও বহড়ু হাই গার্লস ও বয়েজ স্কুলের সামনে হয় বোমাবাজি৷ গুলিও চলে বলে অভিযোগ৷ সঙ্গে ভাঙচুর৷

আরও পড়ুন: লাল কার্ড দেখে ট্র্যাক থেকে ছিটকে গেলেন হিমা দাস

এই হামলায় অভিযোগের আঙুল নির্দলের দিকে৷ যদিও তারা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷ পরে এসডিপিও’র নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী এসে লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে৷ এই ঘটনায় বেশ কয়েকজনকে আটকও করা হয়েছে৷

Advertisement ---
---
-----