চাঞ্চল্যকর ঘটনা! স্তনযুগলের মাঝে শ্বাসরোধ করে শিক্ষককে হত্যার চেষ্টা ছাত্রীর

ঢাকা: শ্বাসরোধ করে শিক্ষককে হত্যার চেষ্টায় অভিযুক্ত এক ছাত্রী। এমনটাই ঘটেছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায়। দায়ের হয়েছে অভি‌যোগও। অভি‌যুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক এনামুল হকের অভি‌যোগ, বিশ্ববিদ্যালয়েরই ছাত্রী ফতেমা খানম স্তন‌যুগল তাঁর নাক-মুখ চেপে ধরে খুনের চেষ্টা করেছেন। ফতেমা বাংলাদেশের শাসক দল আওয়ামি লিগের ছাত্র সংগঠন ছাত্র লিগের নেত্রী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিটে ছাত্রী শাখার দায়িত্বে আছেন তিনি। ওদিকে এনামুল বছর কয়েক আগেও ছিলেন ছাত্র লিগের সহ-সভাপতি। সেই থেকেই দু’জনের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আছে বলে গুঞ্জন বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে।

যদিও ফতেমার দাবি, সম্প্রতি এনামুল তাঁকে বিয়ে করতে অসম্মত হয়। বদলে এনামুলের কাছে রাখা ২ লক্ষ বাংলাদেশি টাকা ফেরত চান ফতেমা। কিন্তু টাকা দিতে চাননি এনামুল। এখন মিথ্যা অভিযোগ করছেন। পালটা এনামুলের দাবি,  সম্প্রতি তাঁকে ‌শারীরিক ঘনষ্ঠতার আহ্বান জানায় ফতেমা। আহ্বানে সাড়া দিয়ে লিপ্ত হন তিনি। তখনই স্তন‌যুগলের সাহায্যে তাঁর শ্বাসরোধ করে হত্যা করার চেষ্টা করে ফতেমা। কোনওক্রমে নিজেকে মুক্ত করে প্রাণে বাঁচতে উলঙ্গ অবস্থাতেই ঘর থেকে বেরিয়ে আসেন তিনি। পুলিশে দায়ের অভি‌যোগে এমন বয়ানই দিয়েছেন তিনি। ঢাকার সাতকানিয়া থানায় ফতেমার বিরুদ্ধে স্তনকে অস্ত্র করে খুনের চেষ্টার অভি‌যোগ দায়ের করেছেন এনামুল।

- Advertisement -

‌যদিও খুনের চেষ্টার কথা পুরোপুরি অস্বীকার করেছেন ফতেমা। তাঁর দাবি, ঘনিষ্ঠতার সময় তাঁর স্তন‌যুগল অসাবধান বশত এনামুলের নাক মুখ বন্ধ করে দেয়। তবে এনামুলের দাবি, ‘আর কয়েক সেকেন্ড থাকলে আমি মরেই ‌যেতাম’। সে এ-ও জানায়, ফতেমা তাঁকে আনন্দঘন মৃত্যু দেওয়ার হুমকি দিচ্ছিল। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিনব এই অস্ত্রের কথা শুনে বিভ্রান্ত আধিকারিকরাও।

প্রতিবেদনটি পুরোন আর্কাইভ থেকে-

Advertisement ---
---
-----