দেরাদুন: ৫০বছর পরে বরফের মাঝেই খুঁজে পাওয়া গেল নিহত সেনার দেহ৷ ১৯৬৮সালে হিমাচল প্রদেশের লাহাউল উপত্যকায় ভেঙে পড়ে ভারতীয় বায়ুসেনার AN-12 এয়ারক্র্যাফ্ট৷ লেহ থেকে চন্ডিগড়ে ১০২ আধিকারিককে নিয়ে উড়ে যাচ্ছিল এটি৷ তাদের মধ্যে তেকেই নিহত এক সেনা দেহাবশেষ দেখতে পেলেন কিছু পর্বতারোহী৷ পাওয়া যায় ভাঙা বিমানের কিছু অংশও৷

জানা গিয়েছে, ১জুলাই চন্দ্রভাগা-১৩-এর উদ্দেশ্য বেরিয়ে পড়েছিলেন এই পর্বতারোহীরা৷ তাঁরাই আবিষ্কার করেন সেনার দেহাবশেষ৷ সমুদ্রস্তর থেকে ৬,২০০মিটার উঁচুতে ঢাকা গ্লেসিয়ার বেস ক্যাম্পে অবশিষ্টাংশ খুঁজে পাওয়া যায়৷ টিম লিডার রাজীব রাওয়াত জানান, প্রথমে তাঁর বিমানের কিছু অংশ খুঁজে পান, তার কিছুটা দূরেই সেনার দেহাবশিষ্ট খুঁজে পাওয়া যায়৷ এসবের ছবি তুলে তাঁরা ১৬জুলাই আর্মির হাই অলটিটিউড ওয়ারফেয়ার স্কুলকে এই বিষয়ে অবগত করেন৷ তারপরেই আধিকারিকেরা ওই এলাকায় তল্লাশি অভিযানে নামে৷

পড়ুন: ফের পুলিশকর্মীকে অপহরণ কাশ্মীরে, এনকাউন্টারে খতম জঙ্গি

প্রসঙ্গত, ৯৮ যাত্রী এবং ৪ ক্রু মেম্বার নিয়ে সোভিয়েত ইউনিয়নের এই এয়ারক্র্যাফ্ট ১৯৬৮-র ৭ ফেব্রুয়ারি নিখোঁজ হয়ে যায়৷ কিন্তু রোটাং পাসের কাছে রেডিও কনট্যাক্ট থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এটি৷ ৩৫বছর পরে ২০০৩সালে সাউথ ঢাকা গ্লেসিয়ারে বিমানের ধ্বংসাবশ আবিষ্কৃত হয়৷ ২০০৩ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে মাত্র পাঁচটি দেহ উদ্ধার করা সম্ভবপর হয়৷ মনে করা হচ্ছে ওই এলাকায় বাকি দেহগুলিও রয়েছে৷

----
--