বিহার-উত্তরপ্রদেশের শ্রমিকদের জন্য কাজ হারাচ্ছে রাজ্যবাসী: মুখ্যমন্ত্রী

ভোপাল: রাজ্যের মানুষের কর্মসংস্থানে ভাগ বসাচ্ছে ভিন রাজ্য থেকে আগত শ্রমিকেরা। এমনই অভিযোগ করেছেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী। যা ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

দেশের বিভিন্ন রাজ্যে অন্য রাজ্য থেকে শ্রমিকেরা গিয়ে কাজ করেন। এটা দীর্ঘ দিন ধরেই চলে আসছে। কর্মঠ হওয়ায় বিহারের শ্রমিকেদের কদর বেশি। প্রায় একই মাপকাঠিতে বিচার করা হয় উত্তর প্রদেশ থেকে শ্রমিকদেরকেও।

কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ এই দুই রাজ্য থেকে আগত শ্রমিকদের জন্য বঞ্চিত হচ্ছে রাজ্যের মানুষেরা। নিজের রাজ্যে কাজ হারাচ্ছেন রাজ্যবাসী। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছেন মধ্যপ্রদেশের নতুন মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ।

চলতি সপ্তাহের সোমবার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন কমল নাথ। মধ্যপ্রদেশে দীর্ঘ ১৫ বছরের বিজেপি শাসনের অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ক্ষমতায় ফিরেছে কংগ্রেস। নির্বাচনে লড়াই হয়েছে সেয়ানে সেয়ানে। শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত চূড়ান্ত কিছু বোঝা যায়নি। প্রবীণ নেতা কমল নাথের উপরেই রাজ্যের প্রশাসন পরিচালনার ভার দিয়েছে কংগ্রেস হাইকম্যান্ড।

শপথ নিয়েই কৃষিঋণ মুকুব করে শিরোনামে উঠে এসেছিলেন কমল নাথ। পরদিন মঙ্গলবারে তিনি নজর দেন শিল্পে। আর তখনই জড়িয়ে গেলেন বিতর্কে। তিনি বলেন, “এখানে অনেক শিল্প আছে, যেখানে উত্তরপ্রদেশ ও বিহারের বাসিন্দারা এসে কাজ করছেন। আমি তাদের সমালোচনা করতে চাই না। কিন্তু তাতে মধ্যপ্রদেশের যুবক-যুবতীরা চাকরিতে বঞ্চিত হচ্ছেন।”

রাজ্যের শিল্পের উন্নতির জন্য এদিন একগুচ্ছ পরিকল্পনার কথা বলেছেন নতুন মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ। সেখানে রাজ্যবাসীর কর্মসংস্থানের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হবে বলে ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানিয়েছেন বস্ত্রশিল্পের জন্যে একটি পার্ক তৈরি করা হবে, যেখানে কাজ পাবেন মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দারাই। একই সঙ্গে তিনি ঘোষণা করেছেন যে যে সব শিল্পে ৭০ শতাংশ মধ্যপ্রদেশের বাসিন্দার চাকরি দেওয়া হয়েছে, তাদের সরকার ইনসেনটিভ দেবে।

---- -----