ত্রিপুরা-বাংলাদেশ বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নে জোর বিপ্লব দেবের

স্টাফ রিপোর্টার, আগরতলা: ত্রিপুরাকে মডেল রাজ্য বানানোর ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার যে লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে চলছে এবং যেভাবে কাজ করছে তা প্রশংসার দাবি রাখে বলে জানালেন, পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের চেয়ারম্যান এন কে সিং। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টায় বিভিন্ন বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব-সহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রিসভার প্রতিনিধিদের সাথে আলোচনা করেন পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের প্রতিনিধিরা।

আলোচনা শেষে এক সাংবাদিক সম্মেলনে পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের চেয়ারম্যান এনকে সিং জানান, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, মানবসম্পদ উন্নয়ন-সহ আরও বিভিন্ন ক্ষেত্রে রাজ্য সরকার প্রতিটি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করেছে। ত্রিপুরার প্রয়োজনের কথা ভেবে সহানুভূতিসুলভ মানসিকতা প্রদর্শন করা হবে বলে জানালেন এন কে সিং। মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেব এবং রাজ্য মন্ত্রিসভার সদস্যদের সঙ্গেও বৈঠক করেছেন অর্থ কমিশনের সদস্যরা বলেও জানান তিনি।

- Advertisement -

মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লবকুমার দেবও ত্রিপুরা এবং বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক আরও মজবুত করার বিষয়ে গুরুত্ব দিয়েছেন। এন কে সিং সাংবাদিকদের বলেন, অর্থ কমিশনের প্রতিনিধিদের কাছে ব্যবসায়ীরা আবেদন করেছেন, ভারত এবং বাংলাদেশের মধ্যে বাণিজ্য সম্পর্ক কী করে আরও বৃদ্ধি করা যায় এই বিষয়ে যেন গুরুত্ব দেওয়া হয়। বিশেষ করে সড়ক-পরিবহণ, নৌ-পরিবহণ এবং বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বন্দরকে কাজে লাগিয়ে উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য বাড়ানো এবং ত্রিপুরাকে সমগ্র উত্তরপূর্ব ভারতের প্রবেশদ্বার করার সম্ভাবনা রয়েছে। একে যেন যথাযথ ভাবে কাজে লাগানো হয়।

তিনি আরও জানান, ১৫-তম অর্থ কমিশনের কাছে ত্রিপুরা সরকার মোট কী পরিমাণ আর্থিক সহায়তা দাবি করেছে তা লিখিত আকারে পেশ করা হয়েছে। সাংবাদিকদের তরফে কমিশনের কাছে জানতে চাওয়া হয়, ত্রিপুরা সরকারের তরফে কী পরিমাণ আর্থিক সহায়তা চাওয়া হয়েছে? এর উত্তরে কমিশনের চেয়ারম্যান এনকে সিং বলেন, এই তথ্য এখন দেওয়া সম্ভব নয়। কারণ এখনও বিভিন্ন রাজ্যের সঙ্গে কথা বলা বাকি। সবকটি রাজ্য আর্থিক সহায়তা আবেদন পেশ করার পর তা প্রকাশ করা হবে।

প্রসঙ্গত, দুদিনের সফরে বুধবার রাজ্যে এসেছে পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের এক প্রতিনিধি দলটি। বুধবার সকালের বিমানে ১৫ জনের প্রতিনিধি দলটি রাজ্যে আসে।