‘মুখ্যমন্ত্রী এক কথায় একজন প্রচার সর্বস্ব মানুষ’

স্টাফ রিপোর্টার, রায়গঞ্জ: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উত্তর দিনাজপুর সফরের আগে পার্টির জেলা কার্যালয়ে এক সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে কটাক্ষ করলেন সিপিএমের পলিটব্যুরো সদস্য তথা সাংসদ মহঃ সেলিম৷ তিনি অভিযোগ করেন একদিকে মুখ্যমন্ত্রী বলছেন টাকা নেই অপরদিকে তিনি প্রশাসনিক বৈঠকের নামে সরকারি টাকায় নির্বাচনের প্রচার করছেন৷ এমনকি ভারতী ঘোষের উদাহরণকেও টেনে আনেন তিনি৷

“মুখ্যমন্ত্রী বলছেন উন্নয়নের কাজ করা যাচ্ছে না, টাকা নেই৷ আর এখন প্রশাসনিক বৈঠকের নাম করে সব জায়গায় সরকারি টাকায় নির্বাচনের প্রচার করে যাচ্ছেন৷ এটা কোনও দিক থেকেই ভালো ব্যাপার নয়৷” মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উত্তর দিনাজপুর সফরের আগে পার্টির জেলা কার্যালয়ে এক সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর সফরকে এভাবেই কটাক্ষ করলেন সিপিএমের পলিটব্যুরো সদস্য তথা সাংসদ মহঃ সেলিম৷ তিনি আরও বলেন, “তাঁর এই কাজকর্ম রাজ্যবাসীদের পক্ষে ভাল নয়, অন্যদিকে যে সব অফিসারররা তাঁকে একদিন মা মা করতেন তাঁদের জন্যও ব্যাপারটা ভাল নয়৷ তার উদাহরণ ভারতী ঘোষ৷”

সেলিম বলেন বন্যার পরে পার্লামেন্টে বারবার টাকা দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে৷ কেন্দ্র টাকা দেওয়ার ব্যাপারে গড়িমসি করছে কিন্তু রাজ্য সরকারের এব্যাপারে যথেষ্ট ক্ষতিপূরণ দেওয়া উচিত ছিল৷ এখনও নানা জায়গায় বন্যা পরবর্তী বেহাল অবস্থা হয়ে রয়েছে৷ মহম্মদ সেলিম আরও কটাক্ষ করেন,”এর আগেও প্রচুর শিলান্যাস করেছেন৷ কাল আবার পেপার জুড়ে বিজ্ঞাপন দেবেন এবং আরও প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন৷ কিন্তু আগের প্রকল্প গুলোর কি হল তার খোঁজ নেবেন কি?”

- Advertisement -

রায়গঞ্জে মেডিকেল কলেজের জন্য কেন্দ্র ৯৯ কোটি টাকা দিয়েছে৷ কিন্তু কাজ হচ্ছে ঢিমেতালে৷ সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের নামে রঙচঙে বিল্ডিং হচ্ছে কিন্তু তাতে একদমই পরিষেবা নেই বলেও জানান সেলিম৷ তাঁর আরও অভিযোগ একদিকে ব্যাঙ্কের মাধ্যমে টাকা লুঠ হচ্ছে অন্যদিকে তৃণমূল নেতারা গৃহহীনদের বাড়ি দেওয়ার নাম করে টাকা কামাচ্ছে৷ মমতা বন্দোপাধ্যায় নীরব মোদির মতো লোকজনকে এ রাজ্যে আহ্বান জানিয়েছিলেন৷ কারন চারিদিকে লুটের সাম্রাজ্য তৈরি করাটাই এঁদের মূল লক্ষ্য৷ ব্যাঙ্কে যেমন লুট চলছে তেমনি প্রাথমিকে চাকরির নামে দুর্নীতি হচ্ছে৷ মহম্মদ সেলিম এদিন মোদীকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি৷ তিনি বলেন “মোদী ভাই আর দিদি ভাইয়ের সেট আপ হয়ে গেছে যে কেউ কাউকে সমস্যায় ফেলবে না৷”

সাংসদ দাবি করেন যে ইসলামপুরে বাইপাস মেরামতির জন্য ৫৬ কোটি টাকা আনা হয়েছিল৷ তার কাজ হয়েছে কিন্তু গ্রামীণ রাস্তা গুলো কি অবস্থা? চারিদিকে উন্নয়নের নামে লুঠ চলছে৷ এরকম আগে ছিলনা৷ নির্বাচনের সময়ে ভোট লুঠ করে আর বাকি সময়ে সেই ভোট লুটেরারা গরিব মেয়েদের ইজ্জত লুটছে৷ কুশমন্ডীতে আজ যে নারকীয় ঘটনা ঘটল তা এই সব বিকৃত মনস্ক লোকেদের কাজ৷ ইসলামপুরে ব্যাপক দুর্নীতি হয়েছে বাইপাসের নামে৷ মুখ্যমন্ত্রী কিছু বলছেন না মাফিয়ারাজ কায়েম করে জমি লুঠ চলছে৷ রাজ্যের সর্বত্র চলছে একই ঘটনা৷ পথ নিরাপত্তার নামে সিগনালে নিজের ছবি দিয়ে প্রচার চলছে৷ মুখ্যমন্ত্রী এক কথায় একজন প্রচার সর্বস্ব মানুষ৷”

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে সেলিম জানান, “রায়গঞ্জ পুরসভা নির্বাচনে যে অবস্থা হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী তা জানেন৷ মানুষের ভোটের অধিকার ছিনিয়ে নিয়ে তৈরি করা পুরবোর্ডের উপহার যে তিনি ভালোবাসেন তা বোঝা যাচ্ছে৷ আসলে গুলি বন্দুক দিয়ে যে উপহার পাওয়া যায় উনি সেই উপহারটাই গ্রহণ করেন৷”

রায়গঞ্জে ট্রেনের দাবির বিষয়ে তিনি জানান,”আগের মন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছিল৷ আবারও বর্তমান রেলমন্ত্রী পীযুষ গোয়েলের সঙ্গে সকালের লিঙ্ক ট্রেন দেওয়ার ব্যাপারে কথা হয়েছে৷ কালিয়াগঞ্জ থেকে ট্রেনটি চালানোর ভাবনা চিন্তা করছে রেল মন্ত্রক৷ এতেই বোঝা যায় কেন্দ্রীয় সরকার মানুষের কাজ করতে কতো গড়িমসি করে৷ তবে চেষ্টায় আছি যাতে তাড়াতাড়ি হয়৷ কিছু কিছু কাজ হয়েছে আশাকরি এটাও হয়ে যাবে৷”

Advertisement
-----