স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: অসমের শিলচরে কবিতা পড়তে গিয়ে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের বিক্ষোভের মুখে পড়েন শ্রীজাত। শনিবার এই খবর নিয়ে সরগরম ছিল সংবাদমাধ্যম। এরপরই শ্রীজাতকে ফোন করে পাশে থাকার আশ্বাস দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সূত্রের খবর কবি শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়কে আশ্বস্ত করে সব রকম সাহায্যের কথা বলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। তবে এই প্রথম নয় এর আগেও শ্রীজাত বিরুদ্ধে রাজ্যে দুটি থাকায় এফায়ার দায়ের করেছিল হিন্দু সংহতির কর্মীরা। তখনও শ্রীজাতর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন মমতা।

কিছুদিন আগে ফেসবুকে অভিশাপ নামে একটি কবিতা পোস্ট করেছিলেন কবি শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়। যার শেষ দুটি লাইন ছিল,
“আমাকে ধর্ষণ করবে যদ্দিন কবর থেকে তুলে—
কন্ডোম পরানো থাকবে, তোমার ওই ধর্মের ত্রিশূলে!”
(অভিশাপ/শ্রীজাত বন্দ্যোপাধ্যায়)

এই কবিতাটির শেষ লাইনটি নিয়ে তখনই প্রচুর বিতর্ক হয়। শুধু হিন্দুত্ববাদীরাই নন সাধারণ হিন্দুরাও এই লাইনটির বিরোধিতা করেন। এরপর থেকে সময়ে সময়ে শ্রীজাতর বিরোধিতা করতে দেখা গিয়েছে হিন্দুত্ববাদীদের।

সূত্রের খবর শনিবার শিলচরে ‘এসো বলি’ নামে একটি কবিতা পাঠের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে গিয়েছিলেন শ্রীজাত। পার্ক হোটেলে অনুষ্ঠান চলাকালীন হিন্দুত্ববাদীদের বিক্ষোভের মুখে পড়েন তিনি। এরপর পুলিশের সহায়তায় শিলচরে সার্কিটে হাউসে চলে আসেন কবি শ্রীজাত। আজ তাঁর কলকাতা ফেরার কথা।

শ্রীজাতর পাশে দাঁড়িয়েছেন অগ্রজ কবি সুবোধ সরকারও। তিনি বলেন, ”শ্রীজাতর পাশে আমরা সবাই আছি। আমরা আবার রাস্তায় নামব। ২ ফেব্রুয়ারি আমার আসাম সাহিত্য সভায় কবিতা পড়ার কথা। আমি যাব। সেখানে আমি আমার কবিতা পড়ব না। শ্রীজাতর কবিতা পড়ব। এটাই আমার প্রতিবাদ।”

--
----
--