নয়াদিল্লি: আমেরিকা, চিনের মতো দেশকে টেক্কা দিতে এবার আরও প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত৷ নিজস্ব স্টিলথ ফাইটার তৈরির দিকে এবার নজর দিচ্ছে ভারত৷ এক্ষেত্রে ভারতের শক্তি বাড়াতে দুজন উচ্চপদস্থ সেনেটর ভারতের জন্য ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসনকে এফ-১৬ জেট ফাইটার বিক্রির জন্য চিঠি লেখেন৷

ভারতের স্টিলথ ফাইটার জেট তৈরির পরিকল্পনা আপাতত প্রাথমিক স্তরেই রয়েছে৷ এএমসিএ একটি অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান হবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ শত্রুপক্ষের সঙ্গে মোকাবিলা এবং আকাশপথে তাদের বেকায়দায় ফেলতে বেশ কিছু উন্নতমানের ব্যবস্থা থাকবে এই ফাইটার প্লেনে৷

Advertisement

এটি ভারতীয় বায়ুসেনার শক্তি বহুগুণ বাড়িয়ে দেবে বলেও মনে করা হচ্ছে৷ এই যুদ্ধবিমানটির ডিজাইন মাল্টি রোলের অধীনে হয়েছে৷ মিরাজ ২০০০ এবং জাগুয়ার ফাইটার জেটের পরিবর্তে বায়ুসেনাতে এই অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমানটি ব্যবহার করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে৷

আরও পড়ুন: শত্রুপক্ষের আকাশে এবার চালক ছাড়াই উড়বে তেজস

স্টিল্থ ফাইটার এএমসিএ সুপারসোনিক গতিতে আকাশে উড়বে৷ এর মোট ওজন ২৫টন হবে৷ একটানা দুঘন্টা পর্যন্ত উড়তে সক্ষম এই স্টিলথ ফাইটারটি৷ এতে এইএসএ রেডার, ইনফ্রারেড সার্চ এবং ট্র্যাক সিস্টেম থাকবে৷ এছাড়া পরিস্থিতি অনুযায়ী অ্যাওয়ার্নেস সেন্সরও থাকবে এতে৷ এর বডিকে পৃথক পৃথক মেটিরিয়ালে তৈরি করা হবে যা একপ্রকার দুর্ভেদ্য বলাই যায়৷ থাকবে শক্তিশালী ইঞ্জিন৷ এতটাই আধুনিক হবে এই যুদ্ধবিমান যে তাকে আপগ্রেডও করা যাবে প্রয়োজনে৷ এই ফাইটার প্লেনের পেছনে এমন ব্যবস্থা করা হবে যাতে বেশি পরিমাণে অস্ত্র রাখা যেতে পারে৷ ৪টি মিসাইল বা বোম রাখা যাবে এখানে৷

আরও পড়ুন: শুরু প্রবল মহাযুদ্ধ! একের পর এক মিসাইলের আঘাতে ধ্বংস হচ্ছে মার্কিন যুদ্ধবিমান-এয়ারক্র্যাফট

বায়ুসেনা, ডিআরডিও এবং এয়ারোনটিক্যাল ডেভেলপমেন্ট এজেন্সি এই এএমসিএ প্রজেক্টে কাজ করবে বলে জানা গিয়েছে৷ সব ঠিক থাকলে অ্যাডভান্সড মিডিয়াম কমব্যাট এয়ারক্র্যাফ্টের(এএমসিএ) নামে তৈরি হওয়া এই যুদ্ধবিমান ২০৩০ সালে প্রথমবার আকাশে উড়বে৷ আর এর কয়েক বছরের মধ্যে আরও যুদ্ধবিমান নির্মাণের কাজ আরও দ্রুতগতিতে হবে বলে জানা গিয়েছে৷

----
--