অশ্লীল মেসেজের অভিযোগ টিএমসিপি নেত্রীদের বিরুদ্ধে

চুঁচুড়া: ফের অভিযোগ উঠল তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সংসদের বিরুদ্ধে। হুগলী মহিলা কলেজের ঘটনা৷ দীর্ঘদিন ধরে ফোনে হুমকি ও অশ্লীল এসএমএস পাঠানো থেকে এক অধ্যাপকের হাত পা কেটে, ব্যাগে ভরে পার্সেল করে পাঠিয়ে দেবার অভিযোগ উঠল হুগলী মহিলা কলেজের তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সংসদের বিরুদ্ধে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তীব্র চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী থেকে উচ্চ শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ছাত্রছাত্রীদের সংযত থাকার, শৃঙ্খলা বজায় রাখার নির্দেশ দিলেও তা যে মানা হচ্ছে না, সেদিকেই যেন ইশারা করছে সাম্প্রতিক এই বিষয়টি৷ এদিন বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ পরিদর্শকের কাছে লিখিত অভিযোগে হুগলী উইমেন্স কলেজের অধ্যক্ষা সীমা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, গত প্রায় ৬ মাসেরও বেশি সময় ধরে তৃণমূল পরিচালিত এই ছাত্র সংসদের নেতৃত্বে কলেজে গুণ্ডারাজ চলছে৷ বিঘ্নিত হয়েছে স্বাভাবিক কাজকর্ম থেকে পঠনপাঠন৷

পড়ুন: মুসলিম বাইক আরোহীদের মাথা থেকে ‘টুপি’ সরাল পড়ুয়ারা

- Advertisement -

তাঁর আরও অভিযোগ, সম্প্রতি মিউজিক বিভাগে কর্মী নিয়োগও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি কলেজের এক অধ্যাপককে রীতিমত অসম্মান করা হয়েছে। আর এই সব ঘটনাতেই অভিযোগের তীর উঠেছে টিএমসিপির হুগলী জেলার নেত্রী প্রিয়াঙ্কা অধিকারী এবং কলেজের প্রাক্তন টিআইসি বর্নালী চট্টোপাধ্যায়ের দিকে। সেই সঙ্গে এক কলেজ কর্মীও জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ। তাঁর মদতে নাকি চলছে এই অত্যাচার। কলেজের সুষ্ঠ পঠনপাঠন বিঘ্নিত হওয়া থেকে নিরাপত্তার প্রশ্নে আতংকিত অভিযোগকারীরা৷

বৃহস্পতিবার কলেজের শান্তি ফেরানো ও নিরাপত্তার দাবীতে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গেও দেখা করেন কলেজের অধ্যক্ষ সহ বেশ কয়েকজন অধ্যাপিকা ও অধ্যাপক।

Advertisement ---
---
-----