ভুল ইনজেকশনে শিশুমৃত্যুর অভিযোগ হাসপাতালের বিরুদ্ধে

স্টাফ রিপোর্টার, মেদিনীপুর: ফের চিকিৎসার গাফিলতিতে শিশুর মৃত্যু অভিযোগ উঠল পূর্ব মেদনীপুর জেলার মহিষাদল হাসপাতালে৷ ঘটনার তদন্তের আশ্বাস দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ৷ মৃত শিশুর নাম পূর্ণ ভুঁইয়া৷ মহিষাদল থানার কালিকাকুন্ডু এলাকার বাসিন্দা৷ শিশুর মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে৷

শিশুর বাবা অজিত ভুঁইয়া ও মায় সম্পা ভুঁইয়া জানিয়েছেন, গত বুধবার পূর্ণকে লক্ষ‍্যা- ১এর উপ সাস্থ্য কেন্দ্রে একটি পোলিও টিকা ইনজেকশন দেওয়া হয়। এরপর প্রবল জ্বর আসে তাঁর। ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পরিবারের সদস্যরা শুক্রবার সকাল ৯টা নাগাদ মহিষাদল ব্লক হাসপাতালে নিয়ে যান৷

আরও পড়ুন: উর্দু মাধ্যমে রাজ্যে প্রথম হাওড়ার নিশাত

- Advertisement -

সেখানে চিকিৎসকরা তাঁকে দেখে বলে ভরতি করে দিতে৷ চিকিৎসকের কথামত তাঁর বাবা ও মা তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করিয়ে দেন৷ এরপর চিকিৎসকরা তাঁকে ফের ওই হাতে ইনজেকশান দেয়। এর কিছুক্ষণ পরেই ওই শিশুর মৃত্যু হয়। পরিবারের অভিযোগ, ভুল ইনজেকশান দেওয়ার ফলেই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। তাঁরা ঘটনার তদন্তের দাবি করেছে৷

প্রসঙ্গত, কিছু মাস আগে চিকিৎসকের গাফিলতিতে সদ্যজাতের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছিল বালুরঘাট সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের বিরুদ্ধে৷ ঘটনার প্রতিবাদে মৃত শিশুর পরিজনেরা হাসপাতালে বিক্ষোভ দেখান৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে হাসপাতালে পৌঁছায় পুলিশ।

অভিযুক্ত চিকিৎসক ডাঃ শিশির মৃধা’র বিরুদ্ধে হাসপাতাল সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগও করা হয়েছিল৷ যদিও অভিযুক্ত চিকিৎসক ডাঃ শিশির মৃধা চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ মানতে চাননি। মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ সুকুমার দে জানিয়েছেন, ‘‘অভিযোগ খতিয়ে দেখতে হাসপাতাল সুপারকে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’’

আরও পড়ুন: ব্যস্ততাকে দূরে সরিয়ে রেখে অসমে ছুটি কাটাতে ব্যস্ত এই টলি অভিনেত্রী

বালুরঘাটের সল্টলেক পাড়ার বাসিন্দা অমিতা সরকার তাঁর ৯ মাসের অন্ত:সত্ত্বা স্ত্রী সম্পা সরকারকে হাসপাতালের বহির্বিভাগে নিয়ে গিয়ে স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞকে দেখিয়েছিলেন। গর্ভজাত শিশু তখনও অপরিণত(প্রি-ম্যাচিওর) বলে বহির্বিভাগের ওই চিকিৎসক বাড়ি পাঠিয়ে দেন।

তারপরের দিন ভোর থেকে সম্পাদেবী অসুস্থতা বোধ করলে বাড়ির লোকেরা তাঁকে সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালে ভরতি করান। স্বামী অমিত সরকারের অভিযোগ, ‘‘এখনও সন্তান প্রসবের সময় হয়নি সেই সঙ্গে মা ও শিশু উভয়েই ভাল আছে বলে ডাঃ শিশির মৃধা ছুটি দিয়ে দেন।’’

আরও পড়ুন: ডাক্তারিতে ভর্তির দুর্নীতি রুখতে মেধাতালিকা প্রকাশের আর্জি

এরপর হাসপাতালের লিফটে করে তাঁকে নামাতে গেলে আচমকায় তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সেখানে সিজারে মৃত সন্তান প্রসব হয়। অভিযোগ ভরতির সময় চিকিৎসককে সিজার করতে অনুরোধ করা হলেও এখনও সময় হয়নি বলে ছুটি দেওয়া হয়েছিল। সঠিক সময়ে অপারেশন হলে সদ্যজাতের মৃত্যু হত না বলেও দাবি সম্পাদেবীর স্বামীর।

Advertisement ---
---
-----