জোটের জটে জটিলতায় কর্ণাটক বাজেট

বেঙ্গালুরু: জোট যে বড় জটিল বিষয় তা উপলব্ধি করতে শুরু করেছেন কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী তথা জেডি(এস) নেতা এইচ ডি কুমারস্বামী। জোটের জটিলতার কারণে রাজ্যের বাজেট পেশ করার ক্ষেত্রে দেখা দিয়েছে সমস্যা।

কর্ণাটক বিধানসভা নির্বাচনে কোনও রাজনৈতিক দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। ১০৪টি আসন পেয়ে একক বৃহত্তম দল হলেও ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে পারেনি। সেই কারণে সরকার গঠন সম্ভব হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ সেই পদ খোয়াতে হয়েছে বিএস ইয়েদুরাপ্পাকে।

সেই সুযোগেই ওই রাজ্যে সরকার গঠন করে কংগ্রেস এবং জেডি(এস) জোট। মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবে গৌড়া-র পুত্র তথা জেডি(এস) নেতা এইচডি কুমারস্বামী। উপ-মুখ্যমন্ত্রীর পদটি অবশ্য কংগ্রেসের দখলে রয়েছে। কংগ্রেস নেতা ডাঃ জি পরমেশ্বর এখন ওই রাজ্যের উপ-মুখ্যমন্ত্রী।

- Advertisement -

এই জোট সরকারের যাত্রাপথ যে খুব সুখকর হবে না সেই কথা বারবার বলে এসেছিল বিজেপি নেতৃত্ব। সেই আভাস মিলেছিল আগেই। সরকার গঠনের পরেই অনেক কংগ্রেস নেতা মন্ত্রিত্বের দাবিতে বিদ্রোহ করেছিলেন। সেই সময় থেকেই জোট নিয়ে জটিলতার সম্মুখীন হতে হয়েছিল মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীকে। সেই জটিলতা আরও বড় আকার নিয়েছে বাজেট পেশ করা নিয়ে।

বাজেট পেশ কোন উপায়ে করা উচিত তা নিয়ে সংবাদ মাধ্যমে মুখ খুলেছেন কর্ণাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া। এরপরেও বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের পরে বাজেট পেশ করার কথাও ভাবতে শুরু করেছেন তিনি। কারণ লোকসভা নির্বাচন পর্যন্ত জোট টিকিয়ে রাখা খুবই দরকার। তাঁর কথায়, “অনেকেই লোকসভা নির্বাচনের পরে বাজেট পেশ করার পরামর্শ দিয়েছে। সেই বিষয়টা নিয়ে ভাবতে হচ্ছে।”

আগামী মাসের পাঁচ তারিখে কর্ণাটকে বাজেট পেশ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু, জোট নিয়ে প্রতিকূলতার কারণে সরকার টিকিয়ে রাখাটাই এখন মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। এই বাজেট পেশের বিষয়ে জোট সরকারের অনেক বিধায়ক জটিলতা সৃষ্টি করছে বলেও অভিযোগ করেছেন জেডি(এস) নেতা এইচ ডি কুমারস্বামী।

নির্বাচনের আগে কৃষকদের ঋণ মুকুবের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল জেডি(এস)। সেই কারণে সেটাই কুমারস্বামীর কাছে অগ্রাধিকারের বিষয়। যার মোট পরিমাণ প্রায় দশ হাজার কোটি টাকা। কিন্তু, মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেছন যে অনেক বিধায়ক এই ঋণ মুকুব করানোর ক্ষেত্রে কমিশন নেওয়ার চেষ্টা করছেন। সেই কারণেই তৈরি হচ্ছে প্রতিকূলতা। যার জেরেই বাজেট পেশ নিয়ে সমস্যা দেখা দিচ্ছে।

এই বাজেট পেশ করাটাই এই মুহূর্তে কর্ণাটকের বড় ইস্যু। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ওই রাজ্যের বিধানসভায় শেষবারের মতো বাজেট পেশ হয়েছিল। সেই সময় বিধানসভায় থাকা শতাধিক সদস্য ভোটে হেরে গিয়েছেন। সেই জায়গায় নতুন করে ১০০ জন বিধায়ক এসেছেন। জাতীয় রাজনীতির স্বার্থে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি বিরোধী জোট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সকল কারণেই বাজেট পেশ নিয়ে প্রতিকূলতা দেখা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্ণাটকের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারস্বামী। অন্যদিকে, আগামী লোকসভা নির্বাচন পর্যন্ত কর্ণাটকে ভোট অন অ্যাকাউন্ট বাজেট পেশ করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া।

Advertisement ---
---
-----