সরকারি চাকরির জন্য ৫ বছর সেনাবাহিনীতে থাকার প্রস্তাব

নয়াদিল্লি: রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় সরকারি চাকরি পেতে হলে এবার থেকে তার আগে ৫ বছর সেনায় কাজ করতেই হবে৷ এমনই সুপারিশ করেছে সংসদীয় স্থায়ী কমিটি ।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের ওই কমিটি চাইছে যাতে কেন্দ্রের কর্মী ও প্রশিক্ষণ বিভাগ এ ব্যাপারে একটি প্রস্তাব তৈরি করে তা কেন্দ্রের কাছে পেশ করে। কারণ বর্তমানে সেনাতে কর্মী সংখ্যা ভীষণ ভাবে কমে গিয়েছে৷ ফলে সেই অভাব পূরণ করতে এবার থেকে সরকারি চাকরিতে ঢোকার আগে যুবক যুবতীরা যদি ৫ বছর সেনা বাহিনীতে কাজ করান প্রস্তাব রাখা হয়েছে৷

প্রসঙ্গত, এই মুহূর্তে সেনাবাহিনীতে প্রয়োজনের থেকে ২০,০০০ জওয়ান ও ৭,০০০ অফিসার কম রয়েছেন। একইরকম ভাবে বায়ুসেনার অফিসারের সংখ্যা দেড়শো মত এবং ১৫,০০০ বায়ুসেনার পদ ফাঁকা পড়ে রয়েছে। তা ছাড়া নৌসেনার ১৫০ অফিসার এবং ১৫,০০০সেনাকর্মীর পদ ফাঁকা।বিপরীতে শুধু রেলেই কর্মরত রয়েছেন ৩০ লক্ষ মানুষ৷ তাছাড়া বিভিন্ন রাজ্যে কর্মরত সরকারি কর্মীর সংখ্যা ২ কোটি ।

- Advertisement -

পড়ুন: ‘টাকার অভাবে থমকে যেতে পারে আর্মির MAKE IN INDIA প্রজেক্ট’

সেক্ষেত্রে এই সব সরকারি পদে যাঁরা আবেদন করবেন তাঁদের যদি তার আগে ৫ বছর সেনায় কাজ করাটা বাধ্যতামূলক করা যায় তাহলে সেনার কাজের লোক কম থাকার সমস্যা মিটে যাবে । তা ছাড়া যুক্তি হল এই সব সরকারি কর্মীদের ৫ বছরের সেনা প্রশিক্ষণ থাকলে তারা সুশৃঙ্খল কর্মী হয়ে উঠবেন৷ এমন প্রস্তাব স্থায়ী সংসদীয় কমিটি রাখলেও প্রতিরক্ষা মন্ত্রক তেমন উৎসাহ না দেখানোয় এবার বিষয়টি কর্মী ও প্রশিক্ষণ বিভাগে পাঠান হচ্ছে৷ তারা।

তবে এটাও ঘটনা গতমাসে রেলের দেওয়া বিজ্ঞাপনে ৮৯,০০০ চাকরির জন্য নথিভুক্ত আগ্রহী লোকের সংখ্যা দেড় কোটি ৷ যা দেশের ভয়াবহ বেকার সমস্যার প্রতিফলন ছাড়া কিছু নয় বলে অনেকেই মনে করছেন৷ ফলে ভবিষ্যতে এমন হারে আবেদন ঠেকাতেই কি বর্তমান সরকার সেনাবাহিনীতে ৫ বছর কাজ করার বাধ্যবাধকতা শুরু করতে চাইছে বলে বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্ন তুলছে৷

Advertisement
---