নয়াদিল্লি: গত ২৬ এপ্রিল কর্ণাটক নির্বাচনের প্রচারের জন্য দিল্লি থেকে বিমানে কর্ণাটকের হুবলি যাচ্ছিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। সুপার লাক্সারি ডুসেলডফ ফ্যালকন বিমানে উঠেছিলেন তিনি। মাঝ আকাশে যান্ত্রিক ত্রুটির জন্য বিমানটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে।

রাহুল গান্ধীর সহযাত্রী কৌশল বিদ্যার্থী অভিযোগ করেন, মাঝ আকাশে বিমানটি হঠাৎ বাঁদিকে বেঁকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। তারপর সেটি দ্রুত নীচে নামতে থাকে। বিমানের একদিক থেকে একটি যান্ত্রিক আওয়াজ আসছিল। গোটা বিমানটি কাঁপছিল। অথচ আবহাওয়া সেদিন একদমই পরিস্কার ছিল৷ এই ঘটনার পরেই তদন্তে নামে ডিজিসিএ৷

Advertisement

তবে ডিজিসিএর তদন্তে মোটেও সন্তুষ্ট নন মধ্যপ্রদেসের এই কংগ্রেস নেতা৷ তাই রাহুল গান্ধীর জন্য একটা নতুন বিমানই কিনতে চাইছেন এই নেতা৷ সেই মর্মে সংবাদ পত্রে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা অশোক জয়সওয়াল৷ তিনি তাঁর বাড়ি বিক্রি করতে চাইছেন৷ সেই টাকা পাঠানো হবে কংগ্রেস সভাপতির কাছে৷ যাতে একটি নতুন নিরাপদ বিমান কিনতে পারেন তিনি৷

তাঁর মতে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে দেশের বিভিন্ন জায়গায় যাবেন কংগ্রেস সভাপতি৷ তাই তাঁর একটি নিরাপদ বিমানের প্রয়োজন৷ সে কথা মাথায় রেখেই বাড়ি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন অশোক জয়সওয়াল৷ যাতে বাড়ি বিক্রির টাকায় বিমান কিনে নিতে পারেন রাহুল৷

বাড়ি বিক্রির টাকা ২৪ নম্বর আকবর রোডে পাঠাতে চাইছেন অশোক জয়সওয়াল৷ তাঁর মতে রাহুল গান্ধীর মত একজন সৎ নেতার প্রাণের দাম অনেক৷ তাঁর নিরাপত্তা সবার আগে দরকার৷ তাই তাঁর প্রয়োজন একটি বিমানের৷ গত ৪০ বছর ধরে অশোক জয়সওয়াল কংগ্রেস কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছেন৷ বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, বিরোধী দলকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার নীতি নিয়েছে কেন্দ্র সরকার। নরেন্দ্র মোদি সরকার কংগ্রেস মুক্ত ভারত চায়। কিন্তু সুষ্ঠ গণতন্ত্রের জন্য শক্তিশালী বিরোধী থাকাও খুব গুরুত্বপূর্ণ।

প্রসঙ্গত, একটি বৈদ্যুতিন চ্যানেল ডিজিসিএয়ের রিপোর্টের ভিত্তিতে দাবি করে, গত ২৬ এপ্রিল বিমানে যে প্রযুক্তিগত সমস্যা দেখা দিয়েছিল তাতে ২০ সেকেন্ডের জন্য বেঁচে গিয়েছিল রাহুল গান্ধীর বিমান৷ তা ভেঙে পড়তে পারত৷ ওই চ্যানেলের মতে ডিজিসিএ-র এই রিপোর্টে এই প্রযুক্তগত সমস্যায় ষড়যন্ত্রের দিকে ইঙ্গিত করা হয়৷ প্রসঙ্গত, এই ঘটনায় কংগ্রেস সভাপতির বিমানকে এমারজেন্সি ল্যান্ডিং করাতে হয়৷

----
--