কেরলে বন্যা দুর্গতদের পাশে কং বিধায়ক ও সাংসদরা

নয়াদিল্লি: গত ১০০ বছরে এমন বন্যা দেখেনি কেরল৷ ইশ্বরের ভূমে বন্যা ও ধসে মৃতের সংখ্যা ৩৫০ ছাপিয়ে গিয়েছে৷ বাস্তুহারা হাজার হাজার মানুষ৷ জলবন্দি লক্ষাধিক৷ রাজ্যের ১৪টি জেলার মধ্যে ১৩টি জেলা জলের তলায়৷ কেরল জুড়ে চারিদিকে একটাই আর্তনাদ, ‘আমাদের বাঁচান৷’’

কেরলের এই দুর্দিনে সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছেন রাজনৈতিক নেতারা৷ কংগ্রেসের সকল সাংসদ ও বিধায়করা তাদের একমাসের বেতন দান করেছেন ত্রাণ তহবিলে৷ রাজ্যের দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পরই এই সিদ্ধান্ত নেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ এরপরই দলীয় কর্মীদের যথাসাধ্য সাহায্য করার আর্জি জানান তিনি৷

কংগ্রেস সভাপতির অনুরোধ ফিরিয়ে দেননি কেউ৷ সংসদে এবং রাজ্যে দলের যত জন বিধায়ক আছেন অধিকাংশ তাদের একমাসের বেতন দান করেন ত্রাণ তহবিলে৷ কংগ্রেসের মতোই আপের সাংসদ ও বিধায়করাও তাদের এক মাসের বেতন দান করেছেন ত্রাণ তহবিলে৷

- Advertisement -

সাহায্য এসেছে ওড়িশা থেকেও৷ কেরলের উদ্ধারকার্যে গতি আনতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক বিশেষ প্রশিক্ষিত বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী পাঠিয়েছে৷ পাঠানো হয়েছে ৭৫টি পাওয়ার বোট৷ তার আগে কেরলের জন্য ৫ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করেন নবীন পট্টনায়েক৷ পাঞ্জাব ও কর্ণাটক সরকার ১০ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করেছে৷ তেলেঙ্গানা ত্রাণ তহবিলে ২৫ কোটি টাকা দেওয়ার কথা জানিয়েছে৷

অপরদিকে কেরলের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার পর কেন্দ্র আরও ৫০০ কোটি টাকা আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করেছে৷ রাজ্যের জন্য কেন্দ্রের অর্থ বরাদ্দ বৃদ্ধিকে ভালো পদক্ষেপ বলে ঘোষণা করেও রাহুল গান্ধী জানান, বন্যার জেরে কেরলের যা ক্ষতি হয়েছে ৫০০ কোটি টাকা দিয়ে তা পূরণ করার নয়৷

Advertisement ---
---
-----