গীতা-কোরান বিলিয়ে বিজেপি-তৃণমূলকে টেক্কা দিতে চাইছে কংগ্রেস

দেবযানী সরকার, কলকাতা: রামনবমী নিয়ে বাংলায় শাসক-গেরুয়া শিবিরের ‘কাদা’ ছোঁড়াছুঁড়ি অব্যাহত৷ তার মধ্যেই নিজেদের মরা গাঙে জোয়ার আনতে রামকে হাতিয়ার করতে চলেছে বিধান ভবনও৷

ধর্ম নিয়ে রাজনীতির বিরুদ্ধে আগামী এপ্রিল মাসের গোড়া থেকেই রাজ্যজুড়ে পালটা পথে নামছেন কংগ্রেসের ছাত্র-যুবরা৷ তবে অস্ত্র নিয়ে নয়, তাঁরা হাতিয়ার করতে চলেছে গীতা, কোরানকে৷

রামনবমী কার? বিজেপি না তৃণমূলের? এই প্রশ্নে যখন গোটা রাজ্য-রাজনীতি জেরবার তখন কংগ্রেসও পিছিয়ে নেই৷ তৃণমূল ও বিজেপির ধর্ম নিয়ে রাজনীতির পালের হাওয়া কাড়তে এ বার তারাও ময়দানে নামছে৷ তবে তাদের কর্মসূচিতে শুধু রাম নেই৷ রয়েছেন রহিমও৷

- Advertisement -

এর আগে ২৫ মার্চ হাজরা মোড়ে রাম-রহিমকে নিয়েই বিশেষ কর্মসূচি পালন করেছেন কংগ্রেসের ছাত্র-যুবরা৷ তবে তৃণমূল-বিজেপিকে রুখতে এ বার বৃহত্তরভাবেই এই কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে৷

ছাত্র পরিষদের সভাপতি আশুতোষ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘আমরা সাম্প্রদায়িকতার তাস খেলি না৷ যেভাবে রামকে সামনে রেখে তৃণমূল ও বিজেপি রাজ্যে সাম্প্রদায়িকতা আমদানি করতে চাইছে, তা রুখতেই এই কর্মসূচি৷’’ একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘রাজ্যের শান্তির পরিবেশ অক্ষুণ্ণ রাখতে এপ্রিলের গোড়া থেকে আমরা রাজ্যর প্রতিটি এলাকায় গীতা, কোরান বিলি করব৷ বার্তা দেওয়া হবে, ধর্ম কখনও হিংসার হাতিয়ার হতে পারে না, ধর্ম শান্তির প্রতীক৷ ’’

শুধুমাত্র তাই নয়৷ কংগ্রেসের ছাত্র সংগঠনের সভাপতি বলেন, ‘‘হিন্দু, মুসলিম কিংবা খ্রীষ্টান, সবার উপরে তো একটাই ধর্ম, মানব ধর্ম৷ ‘ঈশ্বর আল্লা তেরে নাম সবকো সম্মতি দে ভগবান’, গান্ধীজির এই বাণীকে স্লোগান করেই আমরা রাস্তায় নামব৷ ’’ কংগ্রেসের এই কর্মসূচি নিয়ে ওয়াকিবহাল মহল মনে করছে, একেই বলে রাজনীতি৷ সুযোগ বুঝে ঘোলা জলে মাছ ধরতে গান্ধীগিরির পথে হেঁটে পঞ্চায়েতের মুখে জনংযোগ বাড়াতে চাইছে কংগ্রেস৷

Advertisement
---