মুর্শিদাবাদে বিজেপিকে সমর্থন কংগ্রেসের

স্টাফ রিপোর্টার, বহরমপুর: প্রয়োজনে বিজেপিকেও সমর্থন করতে পারে কংগ্রেস। কারণ রাজনীতিতে শেষ কথা বলে কিছু হয় না। সেই কথাটিই সত্যি করে দেখাল মুর্শিদাবাদ জেলার ভরতপুর এক নম্বর ব্লকের গুন্দুরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত।

আরও পড়ুন- মুখ্যমন্ত্রীর বিকৃত ছবি শেয়ার করে বিপাকে জয়া

কংগ্রেসের সমর্থন নিয়ে ওই পঞ্চায়েতের উপপ্রধান হলেন বিজেপি প্রার্থী। অবাক করা হলেও এমনই ঘটনা ঘটেছে নবাবের জেলায়। গুন্দুরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের মোট আসন সংখ্যা ১১টি। যার মধ্যে সাতটি গিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের ঝুলিতে। তিনটি পেয়েছে বিজেপি। একটি আসনে জিতেছে কংগ্রেস প্রার্থী।

- Advertisement -

আরও পড়ুন- তৃণমূল কর্মীকে কুপিয়ে খুন

সোমবার ছিল ওই পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন। খুব সহজেই বোর্ড গঠন করে ফেলে তৃণমূল কংগ্রেস। পঞ্চায়েতের প্রধান হিসেবে নির্বাচিত হন তৃণমূল কংগ্রেসের জয়ী প্রার্থী প্রসাদ ঘোষ। তাল কাটল কে উপপ্রধান হবেন তা নিয়ে।

আরও পড়ুন- ‘রাজীব গান্ধী গণপিটুনির জনক’, পোস্টারে ছয়লাপ দিল্লি

গুন্দুরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধানের পদটি মহিলাদের জন্য সংরক্ষিত। শুধু তাই নয়, তফসিলি জাতির মহিলা সদস্য হলেই উপপ্রধান হওয়া যাবে ওই পঞ্চায়েতের। এই নিয়ম মান্য করা তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষে সম্ভব ছিল না। কারণ জয়ী সাত সদস্যের মধ্যে তফসিলি জাতির কোনও মহিলা প্রার্থী ছিল না।

আরও পড়ুন- মোবাইল ফোন কিনতে ছ’সপ্তাহের শিশুকে বিক্রি মায়ের

বিজেপির তিন জয়ী প্রার্থীর মধ্যে একজন তফসিলি জাতির মহিলা ছিলেন। সেই বিজেপি সদস্য মেনোকা কোনাইকে উপপ্রধান করা প্রস্তাব দেন কংগ্রেসের জয়ী প্রার্থী। কোনও উপায় না থাকায় সেই প্রস্তাব সকলকে মেনে নিতেই হয়। বাধ্য হয়ে হলেও উপপ্রধানের পদে বিজেপি প্রার্থীকে মেনে নিতে হয় প্রধান তৃণমূল কংগ্রেসের প্রসাদ ঘোষকে।

আরও পড়ুন- কেরলের জন্য অর্থ সংগ্রহে গান গাইলেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি

কংগ্রেসের সমর্থন নিয়ে বিজেপি-র উপপ্রধান হওয়াকে কটাক্ষ করেছেন গুন্দুরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান প্রসাদবাবু। তিনি বলেছেন, “বিজেপি আর কংগ্রেস এখন ভাই-ভাই হয়েছে।” আগামী দিনে সাধারণ মানুষের উন্নয়নের জন্যেই গুন্দুরিয়া গ্রাম পঞ্চায়েত কাজ করবে বলে জানিয়েছেন উপপ্রধান মেনোকা কোনাই।

Advertisement ---
-----