বিশ্বকাপ ফাইনালে বিতর্ক

মস্কো: ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছে ফ্রান্স৷ লুজনিকি স্টেডিয়ামে এমবাপেদের এই জয়কে কুর্নিশ জানিয়েছেন ফুটবলবিশ্ব৷ তবে ম্যাচের প্রথম গোলটিকে নিয়েই বিতর্কও তৈরি হয়েছে৷

প্রথমার্ধের ১৮ মিনিটে মান্দজুকিচের আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় ফ্রান্স৷ এই গোলটি রেফারি নেস্তর পিতানার ভুল সিদ্ধান্তের ফলে হয়েছে বলে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে৷ বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন অনেক ফুটবল তারকা৷

আরও পড়ুন: পেলের সঙ্গে একই আসনে এমবাপে

- Advertisement -

রবিবার ম্যাচের শুরু থেকে বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়েছিল ক্রোয়েশিয়া৷ ১৮ মিনিটে ম্যাচের গতি পাল্টে যায়৷ ডান দিকে এগতে গিয়ে বক্সের একটু বাইরে পড়ে যান আঁতোয়া গ্রিজমান৷ ফ্রি-কিকের বাঁশি বাজান পিতানা৷ গ্রিজমানের ফ্রি-কিক থেকে উড়ে আসা বল আটকাতে গিয়ে নিজেদের জালে জড়িয়ে দেন ক্রোয়েশিয়ার ফুটবলার মান্দজুকিচ৷ ১-০ এগিয়ে যায় ফ্রান্স৷ মান্দজুকিচের ওই আত্মঘাতী গোল শেষ পর্যন্ত ফরাসিদের ম্যাচ জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেয়৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ জিতে বেকেনবাওয়ারকে ছুঁলেন দেশঁ

গোলটি নিয়ে একাধিক বিতর্ক তৈরি হয়েছে৷ টিভি ক্যামেরাতে ধরা পড়েছে গ্রিজমান নিজে পড়েছেন৷ তাঁকে ফাউল করা হয়নি৷ যেহেতু এটি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত নয় কিংবা লাল কার্ডেরও প্রয়োজন হয়নি তাই ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির সাহায্য নেননি রেফারি৷

এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষুব্ধ স্পেনের গোলরক্ষক ক্যাসিয়াস টুইটারে লেখেন, ‘সত্যি বলছি, ভিএআর কী জন্য রয়েছে বুঝতে পারছি না৷ রেফারি গ্রিজমানের পড়ে যাওয়াতে ফাউলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, ওটা কোনভাবেই ফাউল ছিল না৷ ওই ফ্রি কিকটাই ফ্রান্সকে এগিয়ে দেয়৷ কিন্তু তারপরও কিছু করা হল না৷’

আরও পড়ুন: বিশ সাল বাদ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স

শুধু প্রথম গোলটিই নয়, দ্বিতীয় গোলের ক্ষেত্রে রেফারির পেনাল্টির সিদ্ধান্ত নিয়েও অনেকে সংশয় প্রকাশ করেছেন৷ বক্সের মধ্যে বল পেরিসিচের হাতে লাগলেও, তা তিনি ইচ্ছাকৃত ছিল না বলেই মন বিশষজ্ঞমহলের একাংশের৷ গ্রিজমান অবশ্য স্পট কিক থেকে গোল করতে ভুল করেননি৷

Advertisement ---
---
-----