নয়াদিল্লি: তৃতীয় স্ত্রী থেকে একেবারে দেশের ফার্স্ট লেডি। দেশের ২২তম প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের দিন সম্ভবত আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন তিনিই। বুশরা মানেকা। পাকিস্তানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বর্তমান স্ত্রী।

ক্রিকেটের সফল কেরিয়ারের পর এবার দেশের প্রধানমন্ত্রীর আসনে রাজ করবেন উজির-ই-আজম ইমরান। গত ১৮ অগস্ট শুরু করেছেন এই নতুন ইনিংস। এরই মধ্যে মাথাচাড়া দিয়েছে নতুন বিতর্ক। আর বিতর্কের কেন্দ্রে তাঁর স্ত্রী বুশরা মানেকা। আরও একটু স্পষ্ট করে বললে ইমরানের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে তাঁর পোশাক।

Advertisement

আর ১০ জন সাধারন পাকিস্তানের মহিলার মত সেদিন তাঁর পরনে ছিল আপাদমস্তক ঢাকা বোরখা ও হিজাব। তাই দেখে প্রশ্ন তুলেছেন নেটিজেনরা। এই ধরনের একটি অনুষ্ঠানে তাঁর পোশাক অনেকের কাছেই খুব ‘হাস্যকর’ মনে হয়েছে। ইমরানের শপথ গ্রহণে উপস্থিত ছিলেন দেশ-বিদেশের বহু বিশেষ ব্যক্তিত্ব। এর মধ্যে তাঁর এই পোশাক পাকিস্তানের মহিলাদের সামজিক অবস্থান সম্পর্কে প্রশ্ন তুলবে এমনটাই মনে করছেন অনেকে। দেশের ফার্স্ট লেডিকেই যদি সর্ব সমক্ষে মুখ ঢেকে রাখতে হয় সেখানে দেশের অন্য মহিলাদের অবস্থা তো প্রশ্নাতীত। তারা বলছেন, ইমরানের এবিষয়ে ভাবা উচিত।

পাকিস্তানের মানুষ প্রতি বারই স্বপ্ন দেখেছেন সুশাসনের। কিন্তু দুর্ভাগ্য স্বপ্নপূরণ হয়নি তাদের। ইমরানের জয় যেন অনেকটা পাকিস্তানের মানুষের কাছে খারাপের মধ্যেও স্বাদ বদল। ইমরান শাসন ব্যবস্থা সম্পর্কে তাদের মনে ভরসা জাগাতে পারবেন কিনা তার উত্তর অবশ্য সময় দেবে।

সম্প্রতি, ইরানের এক সাংসদ তায়েব সিয়াভসির দীর্ঘদিনের লড়াই মুখে হাসি ফুটিয়েছে ইরানের মহিলাদের। ১৯৭৯ সালের পর মহিলারা আর ফুটবল খেলা স্টেডিয়ামে বসে দেখতে পারেননি। এবছর ফুটবল বিশ্বকাপে ইরানের বহু মহিলা আজাদী স্টেডিয়ামে বসে ইরান-স্পেনের খেলা তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করেছেন। দেশের সাংসদ যদি উদ্যোগী হতে পারেন তাহলে প্রধানমন্ত্রী নন কেন? হিজাব পরা কি ইচ্ছা নির্ভর করতে পারেন না ইমরান? ইমরানের ‘নারীবাদী’ সত্ত্বা কি এই বিষয়ে উদ্যোগী হতে পারে না? প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।

তবে টুইটারে অবশ্য অন্যসুরও শোনা গিয়েছে। ইমরানের স্ত্রীর পাশে দাঁড়িয়ে অনেকেই বলেছেন, এটা তাঁর বিষয় তিনি কি পরবেন। বর্তমানে আধুনিক সমাজের একটা অভ্যেসে পরিণত হয়েছে মানুষের পোশাক নিয়ে উপহাস করা। হিজাব তাদের ধর্ম এবং এর জন্য তারা গর্ব অনুভব করেন। সেক্ষেত্রে অন্যদের এই বিষয়ে প্রশ্ন তোলার কোনো অধিকার নেই।

হিজাব পাকিস্তান তথা সমগ্র বিশ্বের মুসলমান মহিলাদের শুধু ধর্মই নয় দীর্ঘ দিনের অভ্যেস। সদ্য ক্ষমতায় আসা ইমরান কি চাইবেন এতটা সাহসী পদক্ষেপ নিতে? সময় উত্তর দেবে।

----
--