কোর কমিটি গঠন ঘিরে বিতর্ক তৃণমূলে

ছবি: প্রতীকী

স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: নতুন কোর কমিটি গঠন করল তৃণমূল কংগ্রেস৷ আর সেই কোর কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে বিতর্ক ছড়াল দলের অন্দরে৷

কারণ, আগের কমিটির সদস্যদের বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ শাসক দলের নেতাদের একাংশের অভিযোগ, বেছে বেছে বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর সদস্যদের বাদ দেওয়া হয়েছে৷

আরও পড়ুন: ফাঁস হল ক্যাটরিনার ‘ভারত’ লুক

একথা অবশ্য মানতে নারাজ নতুন কমিটির সদস্যরা৷ কমিটির চেয়ারম্যানের দাবি, যা হয়েছে, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই হয়েছে৷

বুধবার তৃণমূল কংগ্রেসের কোর কমিটি গঠনের এই বিতর্কের কেন্দ্রস্থল কোচবিহার৷ সেখানে দলের জেলা সভাপতি রাজ্যের উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ৷ এদিন তাঁর বাড়িতে একটি বৈঠক হয়৷ তার পরই মন্ত্রী নতুন কোর কমিটির বিষয়টি ঘোষণা করেন৷

আরও পড়ুন: ফরোয়ার্ড ব্লক থেকে এসেই তৃণমূলে বড় পদে পরেশ অধিকারী

তিনি জানান, কোচবিহারে চারজনের একটি কোর কমিটি তৈরি করা হয়েছে৷ ওই কমিটিতে রয়েছেন মাথাভাঙার বিধায়ক তথা বনমন্ত্রী বিনয়কৃষ্ণ বর্মন, দিহাটার বিধায়ক উদয়ন গুহ ও শীতলকুচির বিধায়ক হিতেন বর্মন। কমিটির চেয়ারম্যান মন্ত্রী নিজে৷

প্রসঙ্গত, এর আগে কোচবিহারে তৃণমূলের কোর কমিটিতে ১১ জন সদস্য ছিলেন৷ ওই কমিটিতে কোচবিহারের সাংসদ পার্থপ্রতীম রায়, বিধায়ক মিহির গোস্বামী-সহ একাধিক নেতা ছিলেন৷ নতুন কমিটিতে তাঁরা সবাই বাদ পড়েছেন৷

আরও পড়ুন: পঞ্চায়েতে বোর্ড গড়ার নির্দেশ দিল জলপাইগুড়ি প্রশাসন

তৃণমূলের একটি সূত্রের বক্তব্য, কোচবিহারে মন্ত্রী ও সাংসদের মধ্যে লড়াই সকলেই জানে৷ দু’পক্ষের অনুগামীরাও একাধিকবার সংঘর্ষে জড়িয়েছে৷ সেই কারণেই সুযোগ বুঝে বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর লোকেদের বাদ দেওয়া হল বলে অভিযোগ৷

যদিও কোর কমিটি থেকে বাদ পড়া সদস্যরা এখনই মুখ খুলতে নারাজ৷ বিধায়ক মিহির গোস্বামী বলেন, ‘‘এই বিষয়ে আমি কিছু জানি না৷ আমাকে কিছু জানানো হয়নি৷ তাই মন্তব্য করব না৷’’

আরও পড়ুন: ঈদে বিষাদের সুর পাঁশকুড়ায়

অন্যদিকে এদিনের কোর কমিটির বৈঠকের পর মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় জানান, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই নতুন কোর কমিটির গঠন করা হয়েছে৷ এদিন কমিটির প্রথম বৈঠকও হয়েছে৷ সেই বৈঠকে ফরওয়ার্ড ব্লক থেকে যোগ দেওয়া পরেশ অধিকারীকে দলের কোচবিহার জেলার সহ-সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে৷

আরও পড়ুন: প্রয়াত হলেন বাঁকুড়ার ধন্বন্তরি চিকিৎসক ডাঃ বীরেন্দ্রনাথ দে

Advertisement
----
-----