সমাবর্তনে সপ্তপর্ণীও হাতে পাবেন না ছাত্রছাত্রীরা

স্টাফ রিপোর্টার: এবারের সমাবর্তন যতটা তাৎপর্যপূর্ণ৷ ততটাই ‘রীতিভাঙারও’ বোঝহয়৷ প্রথমে দেশিকোত্তমে ‘না’৷ তারপর জানা গেল ছাত্রছাত্রীদের হাতে সপ্তপর্ণী বা ছাতিম পাতাটিও তুলে দেওয়া হচ্ছে না এবার৷

সমাবর্তনের দিন ছাত্রছাত্রীদের হাতে শংসাপত্রের পাশাপাশি একটি ছাতিম পাতা তুলে দেওয়ার রীতি আজকের নয়৷ গুরুদেবের সময় থেকে এই পরম্পরা চলে আসছে৷ অথচ এবার তার অন্যথা হচ্ছে৷ বিশ্বভারতী এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কোনও একজন ছাত্র বা ছাত্রীর হাতে পরম্পরা মেনে ছাতিমপাতা ও শংসাপত্র তুলে দেওয়া হবে অনুষ্ঠানমঞ্চ থেকে৷ বাকিরা পরে নিজ নিজ বিভাগ থেকে নিজেদের শংসাপত্রটি নিয়ে নেবেন৷

আরও পড়ুন: মমতার সঙ্গে বন্ধুত্বে আপত্তি নেই সিপিএমের

- Advertisement -

এই সিদ্ধান্তর কারণ হিসাবে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ বলছে, ২০১৩ সালের পর থেকে বিশ্বভারতীতে কোনও সমাবর্তন হয়নি৷ গত পাঁচ বছর ধরে যে পড়ুয়ারা বিশ্বভারতী থেকে পাস করে বেরিয়েছেন সকলেই এবারের সমাবর্তনে শংসাপত্রের প্রাপক৷ এতজনকে সপ্তপর্ণী বা ছাতিমপাতা দেওয়া মানে ১২ হাজার ছাতিমপাতা লাগবে৷ এতে ছাতিমগাছের ক্ষতি৷

বিশ্বভারতী সূত্রে খবর, এর আগে মনমোহন সিং বিশ্বভারতীর আচার্য পদে থাকাকালীন তৎকালীন উপাচার্যকে একটি ছাতিমপাতা প্রতীকী হিসাবে তুলে দিয়েছিলেন৷ এরপর সমাবর্তন এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার আদেশ দিয়ে মঞ্চ ছেড়েছিলেন৷ কারণ, সে বছরও বহু ছাত্রছাত্রী একসঙ্গে সমাবর্তনে যোগ দিয়েছিলেন৷ তবে প্রত্যেকে কিন্তু মঞ্চ থেকেই সপ্তপর্ণী পেয়েছিলেন৷

আরও পড়ুন: সব ধর্মের মানুষকে ইফতারে খাওয়ায় ‘মিলিটারি’ মসজিদ

এবছরই পরম্পরা ভাঙছে৷ সপ্তপর্ণী হাতে না পাওয়ার ‘খারাপ লাগা’কে সঙ্গে নিয়েই এ বছর সমাবর্তনে যোগ দিতে যাবেন ছাত্রছাত্রীরা৷ সময় কম৷ আচার্য নরেন্দ্র মোদী, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মত অতিথিরা যোগ দেবেন৷ অনুষ্ঠান শিডিউল মেদহীন রাখতে চাইছে কর্তৃপক্ষ৷

Advertisement
-----