সিসিটিভি নজরদারিতে হবে ভোট গণনা

    স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান:  সোমবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনের দিন জেলা জুড়ে একাধিক অনভিপ্রেত ঘটনা সামনে এসেছে৷ সেই ছবি দেখে বর্ধমান জেলা প্রশাসন গণনার দিনও অশান্তির আশঙ্কা করছে। সেজন্য প্রতিটি গণনাকেন্দ্রকেই রীতিমত ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয়ে মুড়ে ফেলার কাজ শুরু হয়েছে। জেলাশাসক অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন, গণনাকেন্দ্রের বাইরে থাকছে সিসিটিভি। কারা আসছেন বা কারা যাচ্ছেন তা নথিভুক্ত করা হবে। কড়া নজরদারি থাকবে গণনাকেন্দ্রের ভেতরেও। সেখানেও বসানো হবে ক্যামেরা।

    ইতিমধ্যেই বুথ থেকে ব্যালট বক্স নিয়ে এসে প্রতিটি ব্লকে ব্লকে স্ট্রংরুমে তা রাখাও হয়েছে। ২৪ ঘণ্টা স্ট্রংরুমের বাইরে কড়া পাহাড়ার বন্দোবস্ত করা হয়েছে৷ এদিকে পঞ্চায়েত নির্বাচনে পূর্ব বর্ধমান জেলা জুড়ে জায়গায় জায়গায় সংঘর্ষ, বুথ দখল, ব্যালট পেপার ছিনতাই, ব্যালট বাক্স পুকুরের জলে ফেলে দেওয়া প্রভৃতি ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৭টি বুথে পুনর্নিবার্চন চেয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন পাঠানো হয়েছে। যদিও জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, নির্বাচনী পর্যবেক্ষকদের তরফেও পুর্ননির্বাচন চেয়ে সুপারিশ করা হতে পারে নির্বাচন কমিশনের কাছে। সেক্ষেত্রে পুননির্বাচনের বুথের সংখ্যা বাড়তে পারে।

    এদিন অতিরিক্ত জেলাশাসক (নির্বাচন) প্রবীর চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, সোমবার ভোটের দিন অশান্তির জন্য ভোট প্রক্রিয়া বাতিল হয়ে যাওয়ায় ভাতারের ১৪১ ও ১৪২ নং বুথে পুর্ননির্বাচন চাওয়া হয়েছে। মেমারী -১ নং ব্লকের ৩৯/১, ৪৩,৬৩, ১২৩, ১২৪, ৫৭ ও ৫৮ নং বুথে পুর্ননির্বাচন চাওয়া হয়েছে। মেমারী -২ নং ব্লকের ৮৩নং বুথে, পূর্বস্থলী – ২নং ব্লকের ৬৯, ১০৩, ১০৮ এবং ১০৯ নং বুথে এবং গলসীর ৯৩ ও ৯৪ নং বুথে পুর্নর্নিবাচন চাওয়া হয়েছে। এছাড়াও বর্ধমান -১নং ব্লকের ১৭নং বুথেও পুর্নর্নিবাচন  চাওয়া হয়েছে । এই বুথে ব্যাপক ছাপ্পা ভোট দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

    - Advertisement -

    কমিশন থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী পূর্ব বর্ধমান জেলায় মোট ভোট পড়েছে ৮১.২১ শতাংশ। সব থেকে বেশি ভোট পড়েছে কালনা-২ নং ব্লকে ৮৫ শতাংশ। সব থেকে কম ভোট পড়েছে আউশগ্রামে ১নং ব্লকে ৭৭.০৩ শতাংশ। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, আউশগ্রাম -২ ব্লকে ৮১.৬৪ শতাংশ, ভাতারে ৮০.৪৭,বর্ধমান ১নং ব্লকে ৮১.৩৫, বর্ধমান ২ নং-এ ৭৯.২৮, গলসী -১এ ৭৯.৭৮ শতাংশ, গলসী ২নং -এ ৮০.৮৩ শতাংশ, জামালপুরে ৮১.৮৮ শতাংশ, কালনা ১নং ৮১.৯৯ শতাংশ, খণ্ডঘোষে ৮১.৭০ শতাংশ, মেমারী ৮০.৩২ শতাংশ, মেমারী ২ নং ব্লকে ৮০.৬৭ শতাংশ, মন্তেশ্বরে ৭৮.৪৪ শতাংশ, পূর্বস্থলী ১নং ৮৪.৬০ শতাংশ, পূর্বস্থলী ২নং ব্লকে ৮১.২৭ শতাংশ, রায়না ১নং ব্লকে ৮১.১৩ শতাংশ এবং রায়না ২নং ব্লকে ৮১.৪৪ শতাংশ ভোট পড়েছে। আউশগ্রাম ১ বাদে বাকি প্রায় সমস্ত ব্লকেই রাত পর্যন্ত ভোট প্রক্রিয়া চলেছে। এর মধ্যে রাত্রি প্রায় সাড়ে ৯টা পর্যন্ত ভোট প্রক্রিয়া চলেছে মেমারী ২, পূর্বস্থলী ১ ও ২ ব্লক, মেমারী ১, কালনা ১ ও ২ ব্লকে।

    অতিরিক্ত জেলাশাসক প্রবীর চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই সমস্ত বুথে ভোট প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে মঙ্গলবার ভোর হয়ে যায়। তিনি জানিয়েছেন, বুধবার যে সমস্ত বুথে ফের ভোটগ্রহণ করা হবে সেখানে বিভিন্ন ব্লকের কর্মীদের ভোট কর্মী হিসাবে নিয়োজিত করা হয়েছে। অপরদিকে, সোমবার ভোটের দিন এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি করা, সম্পত্তি নষ্ট করা, ভোট প্রক্রিয়া বানচাল করার ঘটনায় মেমারী ভাতার ও গলসী থেকে মোট ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

    Advertisement
    ----
    -----