গোমূত্র খেলে সারবে ক্যান্সার, জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীদের একাংশ

আমেদাবাদ: আর কোনও দামি ওষুধ, কেমোথেরাপি অথবা রেডিয়েশনের প্রয়োজন পড়বে না। ক্যান্সার সারানোর যুগান্তকারী ওষুধ আবিষ্কার করে ফেলেছেন গুজরাতের জুনাগড় এগ্রিকালচার ইউনিভার্সিটির বায়োটেকলজির বিজ্ঞানীরা৷ ক্যান্সারের প্রথম ধাপ নির্মূল হতে পারে গোমূত্র দিয়ে৷ এমনই দাবি তাঁদের৷

তাঁরা বলছেন গোমূত্র মুখমন্ডল, ফুসফুস, কিডনি, ত্বক ও স্তন ক্যান্সারের নিরাময় করতে পারে৷ বিজ্ঞানী শ্রদ্ধা ভাট, রুকামসিং তোমর ও কবিতা যোশী বলছেন, গত এক বছর ধরে এই নিয়ে নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা চালাচ্ছেন তাঁরা৷ তাদের সেই পরীক্ষার রিপোর্ট বলছে কোনও ক্যান্সার প্রাথমিক স্তরে গোমূত্র দিয়ে নির্মূল করা সম্ভব৷

তাঁরা বলেন যদি নিজেকে ক্যান্সারের হাত থেকে বাঁচাতে চান, তাহলে আগে গো হত্যা রুখতে হবে। কারণ গোমূত্রই ক্যান্সার নিরাময়ের একমাত্র ওষুধ। গোবর এবং গোমূত্রের অনেক রকম ব্যবহার আছে। ক্যান্সার ছাড়া আরও অনেক রোগের নিরাময় সম্ভব এতে। একটা নির্দিষ্ট পরিমাণে গোমূত্র খেলে ক্যান্সার নিরাময় অনেকাংশে সম্ভব৷ তবে বিজ্ঞানীরা বলেছেন মানবদেহের ওপর এখনও এর পরীক্ষা সম্ভব হয়নি৷ ইদুঁরের ওপর পরীক্ষা চালিয়ে সফলতা মিলেছে৷ পরবর্তী ক্ষেত্রে এই নিয়ে ওষুধও বানানো হবে বলে দাবি করেছেন তাঁরা৷

- Advertisement -

এর আগে, আরএসএসের গো সেবা সেল জানিয়েছিল, গোমূত্র পান করলে ক্যান্সার সেরে যাবে৷ এর জন্য গো জপ মহাযজ্ঞও করার পরিকল্পনা করে তাঁরা৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, গোটা দুনিয়ার যত রোগ তার ২১ শতাংশ হয় ভারতেই। তাই আরএসএসের গোসেবা সেল একটি প্রচার পুস্তিকাও ছাপে৷ নাম দেওয়া হয়, সৃষ্টি কা সংরক্ষক ভারতীয় গাই। শুধু হিন্দি নয়, ওডিয়া, তেলুগু, কন্নড়েও অনুবাদ হয় পুস্তিকাটি।

হিন্দি পুস্তিকাটি দু লাখ ইতিমধ্যেই বিক্রি হয়েছে। পুস্তিকায় বলা হয়, দু গ্রাম গোমূত্র, ৪০ গ্রাম জল আর ২৫টি তুলসী পাতা গরুর দুধে মিশিয়ে দিনে তিনবার খেলেই সেরে যাবে ক্যান্সার। শুদ্ধ দেশি ঘি কপালে লাগালে মানসিক চাপ ও মানসিক অন্যান্য রোগ আরোগ্য হবে। গোমূত্রে মাত্র ২৫টি তুলসী পাতা ডুবিয়ে খেলে একেবারে বিনাক্লেশে হয়ে যাবে প্রসব।

কিছু শেকড় বেটে গরুর কাছে রাখলে সেরে যাবে যক্ষ্মা। রাস্তায় গরুর সঙ্গে গা ঘেঁষলে উপশম হবে উচ্চ রক্তচাপের। এমনকী, গরুর সাহায্যে অপরাধও রুখে দেওয়া যায় বলে জানাচ্ছে ওই পুস্তিকা।

Advertisement
---