একমঞ্চে উঠে তৃণমূল বিধায়কের সঙ্গে হাত মেলালেন সিপিএম নেতা

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: অসাধারণ এক বিরল মুহূর্তের সাক্ষী থাকল বাঁকুড়ার জঙ্গলমহল। যুযুধান দুই রাজনৈতিক দলের নেতাকে শুধু এক মঞ্চে আনা নয়। অন্যতম বিরোধী দলের এক নেতাকে মঞ্চে রীতিমতো সম্বর্ধনা জানালেন শাসক দলের বিধায়ক। বিরোধী দুই রাজনৈতিক দলের নেতার করমর্দন আর পাশাপাশি দুই চেয়ারে বসে দীর্ঘক্ষণ চলল খোশ মেজাজে গল্পও।

আর ওই অনুষ্ঠান মঞ্চে বসে এই দৃশ্য উপভোগ করলেন সারেঙ্গা ব্লক তৃণমূল সভাপতি ধীরেন্দ্রনাথ ঘোষ। তিনিও সম্বর্ধনা জ্ঞাপনের মুহূর্তে রাজনীতির ভেদাভেদ ভূলে হাত তালিও দিলেন।

আরও পড়ুন: সৎমাকে খুন করে থানায় আত্মসমর্পণ ছেলের

- Advertisement -

এই অভাবনীয় ঘটনার সৌজন্যে কোনও রাজনৈতিক মঞ্চ নয়। রাজ্যে বর্তমান এই রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে বিরল এই দৃশ্য উপস্থিত সাংবাদিকদের ফ্রেম বন্দি করার সুযোগ করে দিল সারেঙ্গা পঞ্চায়েত সমিতি, খাতড়া ব্লাড ব্যাঙ্ক ও স্বেচ্ছা রক্তদান আয়োজনকারী সংগঠন ‘সোলে’র উদ্যোগে বিশ্ব রক্তদাতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠান। বুধবার সারেঙ্গা ‘সোনারতরী’ সভাকক্ষে জেলার সর্বোচ্চ স্বেচ্চা রক্তদাতা হিসেবে এখনও পর্যন্ত মোট ৮৫ বার রক্তদানকারী সিপিএম নেতা ও জেলা পরিষদের প্রাক্তন সভাধিপতি পার্থপ্রতিম মজুমদারকে স্মারক সহ সম্বর্ধিত করেন তৃণমূল বিধায়ক বীরেন্দ্রনাথ টুডু।

আরও পড়ুন: পড়ুয়াদের ওষুধ মাটিতে পুঁতে দেওয়ার অভিযোগ ঘিরে রহস্য

স্বাভাবিকভাবেই বিরল এই দৃশ্য লেন্স বন্দি করতে সাংবাদিকদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষের মধ্যেও হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। যদিও যুযুধান এই দুই রাজনৈতিক দলের নেতা এই অনুষ্ঠানে রাজনীতির প্রবেশ ঘটাতে চাননি। এবিষয়ে প্রশ্ন করা হলে মুচকি হেসেই দু’জনে প্রসঙ্গ এড়িয়ে গেছেন। দু’জনের সম্মিলীত বক্তব্য, ‘‘রক্ত রাজনীতির বিচার করে না। রক্ত দিয়ে একজন মুমুর্ষূ রোগীকে প্রাণ ফিরিয়ে দেওয়া যায়। আমাদের প্রথম ও শেষ পরিচয় মানুষ। একজন মানুষ হিসেবে মানুষের পাশে দাঁড়ানোই আমাদের প্রধান ও একমাত্র কর্তব্য।’’

আরও পড়ুন: কলেজে ভরতির দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ

এছাড়াও এদিন জেলার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রক্তদানকারী তালডাংরার বাসিন্দা, পেশায় শিল্পী নন্দলাল ঘোষকে সম্বর্ধিত করেন সারেঙ্গার বিডিও অভিষেক চক্রবর্ত্তী। এছাড়াও বিশেষ সম্মান জানানো হয় পেশায় শিক্ষক কৌশিক ঘোষকে। তিনি কিছু দিন আগে নিজের বিয়ের প্রীতিভোজের অনুষ্ঠানে রক্তদান শিবিরের আয়োজন করে এলাকায় নজির সৃষ্টি করেছেন। একই সঙ্গে বাঁকুড়ার বিভিন্ন অংশে স্বেচ্ছা রক্তদান শিবির আয়োজনকারী ক্লাব ও সংগঠনকে পুরস্কৃত করা হয়।

আরও পড়ুন: খালেদা জিয়ার ব্রিটিশ আইনজীবীর ভারতে প্রবেশ নিষেধ

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সারেঙ্গার বিডিও অভিষেক চক্রবর্তী রক্তদাতাদের সম্মান জানিয়ে বলেন, ‘‘এই রক্তদানের মধ্যদিয়ে আমারা মানুষের উপকার করতে পারি। এছাড়াও গ্রীষ্মকালীন রক্তের সংকট রক্ত দানের মাধ্যমে পূরণ করতে হবে।’’ একই সঙ্গে তিনি এই ধরনের স্বেচ্ছা রক্তদান শিবির বেশি বেশি করে সংগঠিত করার প্রয়োজনীয়তা বাখ্যা করেন। প্রসঙ্গক্রমে বিডিও নিজের অভিজ্ঞতার প্রসঙ্গ টেনে এনে বলেন, বেশকিছুদিন আগে গ্রীষ্মের সময় তাঁর মায়ের একটি অপারেশন হয়, সেই সময় রক্তের প্রয়োজন হলে রক্ত জোগাড় করতে গিয়ে তাদের পরিবারকে ভীষণ সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়েছিল। তাই সকলে মিলে স্বেচ্ছায় রক্তদানে এগিয়ে এলে কোনও অসুস্থ ব্যক্তিকেই আর সমস্যায় পড়তে হবে না বলে জানান।

আরও পড়ুন: অমিতাভ-অভিষেকের ওয়ার্ল্ড কাপ নেশা

আয়োজনকারী সংঠনের কর্ণধার নিমাই চক্রবর্তী বলেন, প্রতিনিয়ত রক্তদান শিবিরের মাধ্যমে আমরা ব্লাড ব্যাংকের রক্তের মোট চাহিদার ৮৪ শতাংশ পূরণ হয়েছে এখনো ১৬ শতাংশ বাকি আছে। এই ভাবে বিভিন্ন সংঠন ব্যক্তি এগিয়ে এলে আগামী দিনে আমরা তা পূরণ করতে পারবো।

এদিন রক্তদাতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে এক স্বেচ্ছা রক্তদান শিবিরেরও আয়োজন করা হয়। শিবিরে এক জন মহিলা সহ ৫৪ জন রক্তদান করেন।

আরও পড়ুন: ইংল্যান্ডকে হারিয়ে প্রথমবার বিশ্বকাপ ফাইনালে ক্রোয়েশিয়া

Advertisement
---