বাম আমলের ব্রিজ ভেঙেছে শিলিগুড়িতে, সিপিএম-তৃণমূলে কাজিয়া তুঙ্গে

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মাঝেরহাট কাণ্ড নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিপিএম-কে দোষারোপ করেননি৷ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী প্রফুল্ল সেনের আমলে তৈরি মাঝেরহাট ব্রিজ বাম আমলে মজবুত ভাবেই দাঁড়িয়ে ছিল৷ কিন্তু তাঁর জমানায় সাত বছরের মধ্যেই পঞ্চম ব্রিজটি ভেঙে পড়ার ঘটনা ঘটে গিয়েছে শুক্রবার সকালে শিলিগুড়ির ফাঁসিদেওয়ায়৷

আরও পড়ুন: টালা ব্রিজে ট্রাকের ধাক্কায় মৃত এক

চটহাট-ফাঁসিদেওয়ার মধ্যে যোগাযোগকারী একমাত্র সেতু এটি৷ কৃষিপ্রধান এই এলাকার লোকজন ভীষণভাবে এই সেতুর উপর নির্ভরশীল৷ সেক্ষেত্রে এই সেতু ভেঙে পড়ায় চিন্তা বেড়েছে এলাকার লোকজনের৷ তবে ঘটনায় হতাহতের খবর নেই৷ ঘটনাস্থলে ফাঁসিদেওয়া থানার পুলিশ৷ একটি ট্রাক নিয়ে ভেঙে পড়ে সেতুটি৷ আহত হন ট্রাকের চালক৷ এখনও ট্রাকটি ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে৷

তবে এদিন পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব সিপিএমের সমালোচনা করে জানিয়েছেন, ফাঁসিদেওয়ার ব্রিজ বাম আমলে তৈরি৷ ওরা কীভাবে তৈরি করেছিল, বা কীভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করেছিল, তা নিয়ে তো প্রশ্ন উঠবেই৷ অন্যদিকে, উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষও দাবি করেছেন, বাম আমলে খারাপ কাজোর জন্যই এই দুর্ঘটনা৷

আরও পড়ুন: ট্রেন বাতিলের জেরে ভোগান্তির শিকার সাধারণ মানুষ

রাজনৈতিক মহল অবশ্য বলছে, শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের আওতায় থাকা ওই এলাকায় পঞ্চায়েত বামেদের৷ মহকুমা পরিষদেও বামেরা ক্ষমতায়৷ রাজ্য সরকার তাই সরকার দায় নিতে চাইছে না৷ উত্তরবঙ্গের সিপিএম নেতা জীবেশ সরকার তাই বেজায় চটেছেন৷ তিনি জানিয়েছেন, সরকার দায় এড়িয়ে য়েতে পারে না৷ মন্ত্রী যেভাবে কথা বলছেন, মনে হচ্ছে ওদের কোনও দায়িত্বই নেই৷

অন্যদিকে শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘দেখতে হবে কোন এলাকায় ওই সেতু অবস্থিত৷ সেটি মহকুমা পরিষদে, নাকি শিলিগুড়ি-জলপাইগুড়ি উন্নয়ন পর্ষদে, তা দেখা প্রয়োজন৷’’

----
-----