রামনবমীতে মানুষকে পাশে পেতে সিপিএমের নয়া কৌশল

বাসুদেব ঘোষ, সিউড়ি: এ যেন সেই ‘ধর্মে নেই উৎসবে আছি’র কাহিনী৷ চারদিন বাদেই রাম নবমী৷ আমআদমিকে পাশে পেতে তাই রাম নবমীর আগের দিন সম্প্রীতির মিছিল করবে সিপিএম৷ সেই মিছিলে হাঁটবেন স্বয়ং বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু৷ ঘটনাস্থল, শাসকদলের দাপুটে নেতা অনুব্রত মণ্ডলের জেলা বীরভূমের রামপুরহাট৷ বিমানবাবুর পাশাপাশি মিছিলে হাঁটবেন রাজ্য সিপিএমের একাধিক শীর্ষ নেতা৷

ইতিমধ্যে রামনবমীকে কেন্দ্র করে জেলায় জেলায় বিজেপির পাশাপাশি শাসকদলও মিছিলের প্রস্তুতি শুরু করেছে৷ বীরভূম জেলা সিপিএমের একটি সূত্রের খবর: জনসংযোগ বাড়াতে প্রথমে ঠিক হয়েছিল রামনবমীর দিনই সম্প্রীতির মিছিল হবে৷ কিন্তু আদর্শগত কারণে সিপিএমকে কোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করতে দেখে যায় না৷

ফলে প্রশ্ন উঠতে পারে৷ তাই কৌশলগত কারণেই সম্প্রীতির মিছিলটি রাম নবমীর একদিন আগে করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়৷ দলের এক নেতার স্বীকারোক্তি, ‘‘জন সংযোগ বৃদ্ধির জন্যই- ‘সাপ না মরে, লাঠিও না ভাঙে’ কৌশল নেওয়া হয়েছে৷’’

- Advertisement -

যদিও দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তথা প্রাক্তন সাংসদ রামচন্দ্র ডোমের দাবি, ‘‘আমাদের সম্প্রীতির মিছিলের সঙ্গে রামনবমীর কোনও সম্পর্ক নেই৷ অনেক আগে থেকেই এই কর্মসূচি ঠিক করা হয়েছিল৷’’ একই সঙ্গে সিপিএমের প্রাক্তন সাংসদের দাবি, ‘‘রাম নবমী একটি ধর্মীয় ব্যাপার৷ বিজেপি, তৃণমূল এসব নিয়ে রাজনীতি করতে পারে৷ কিন্তু আমরা ওই পথে হাঁটি না৷’’

সিপিএমের কেন্দ্রীয় নেতা এহেন দাবি করলেও দলীয় সূত্রের খবর, সম্প্রীতির মিছিল হলেও সেই মিছিলে দেখা যাবে না কোনও লালঝাণ্ডা৷ স্বভাবতই, শাসক থেকে গেরুয়া শিবির কটাক্ষের সুরে বলছেন, ‘‘ঠ্যালাই না পড়লে বেড়াল গাছে ওঠে না! সংগঠনকে ধরে রাখতে সিপিএমকেও এখন ধর্মীয় উৎসবে সামিল হতে হচ্ছে৷’’

Advertisement ---
---
-----