দাভোলকর হত্যা: অভিযুক্তদের সিবিআই হেফাজতে না রাখার নির্দেশ

মুম্বই: দাভোলকর ও গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত কত দূর? উত্তর না মেলায়, দুই অভিযুক্তের সিবিআই হেফাজতের সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন খারিজ করল পুনে ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট৷ অভিযুক্তদের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিল আদালত৷ অভিযুক্ত অমিক দিগওয়েকার ও রাজেশ বঙ্গেরার সিবিআই হেফাজত বাড়িয়ে দেওয়ার আবেদন খারিজ করল আদালত৷ ২ জনেই দাভোলকর ও গৌরী লঙ্কেশ হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত৷

অমিত ও রাজেশকে কয়েক দিন আগেই গৌরী লঙ্কেশ হত্যা মামলায় গ্রেফতার করে কর্ণাটক পুলিশ SIT৷ তদন্তে নেমে জানা যায়, এরা দুজনেই নরেন্দ্র দাভোলকর হত্যা মামলায় জড়িত৷ অমিত, রাজেশ ছাড়াও শরদ কালাসকার নামে এক ব্যক্তিকে আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেফতার করে মহারাষ্ট্র এটিএস৷ সিবিআইয়ের দাবি, এই সালাসকারেই নরেন্দ্র দাভোলকরকে যারা গুলি করে তাদের মধ্যে একজন৷ সেই কারণে, তরও সিবিআই হেফাজতের সময়সীমা বাড়ানোর আবেদন করেছিল সিবিআই৷

পড়ুন:শিবসেনাকে কুকুরের সঙ্গে তুলনা রাজের

- Advertisement -

কালাসকারের ক্ষেত্রে সিবিআই হেফাজতের সময়সীমা বাড়াতে আদালত রাজি হোলেও৷ বাকি ২ জনকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ অমিত ও রাজেশের ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত হেফাজত বাড়ানো হোক বলে আবেদন করেছিল সিবিআই৷ ২০১৩ সালের ২০ অগাস্ট, নরেন্দ্র দাভোলকরকে খুন করা হয়৷ ২০১৭ সালের ৫ সেপ্টম্বর খুন হন গৌরী লঙ্কেশকে৷ ২ জনকেই গুলি করে হত্যা করা হয়৷

দাভোলকর হত্যাকাণ্ডে এখনও পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই৷ সিবিআইয়ের অনুমান, অমিত দাভোলকরকে হত্যার ছক করে, রাজেশ হত্যাকারীদের অস্ত্র সরবরাহ করে৷ তবে,শুধুমাত্র অনুমানের ভিত্তিতে ধৃতদের হেফাজতে রাখা যাবে না বলে জানিয়েছে পুনে ম্যাজিস্ট্রেট আদালত৷ একমাত্র কালাসকারের হেফাজত ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ালো আদালত৷

Advertisement
-----