শ্মশানে নিয়ে আসার পর নড়ে উঠল দেহ…তারপর

সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা: শবদাহ করার প্রস্তুতি প্রায় শেষের পথে৷ চুল্লিতে আর কিছুক্ষণের মধ্যেই ঢোকানো হবে দেহ৷ আচমকাই যেন নড়ে উঠল মৃত৷ চমকে গেলেন পরিবারের সবাই৷ তড়িঘড়ি থামানো হল শেষকৃত্যের কাজ৷

উত্তর ২৪ পরগণার মধ্যমগ্রাম বঙ্কিম পল্লীর বাসিন্দা শিবানী বিশ্বাস৷ ৫৫ বছর বয়েসি শিবানী উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস ও রক্তের সংক্রমণ নিয়ে ১০ই জুন বারাসাত হাসপাতালে ভরতি হন৷ ক্রমশ অবস্থার অবনতি হচ্ছিল তাঁর৷ তাঁকে ১১ই জুন আরজিকর হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷

আইসিসিউতে রেখে চিকিৎসা চলে৷ ১৫ই জুন অর্থাৎ শুক্রবার আরজিকর হাসপাতাল থেকে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে৷ এমনকী হাসপাতাল থেকে ডেথ সার্টিফিকেটও দিয়ে দেওয়া হয়৷ সেখানে চিকিৎসক অরিত্র কুমার রায় সই করেন৷

- Advertisement -

এরপর শিবানী বিশ্বাসকে নিয়ে কলকাতা কাশীপুর রতনবাবুর শ্মশানে নিয়ে যাওয়া হয়৷ শবদাহ করার সমস্ত প্রস্তুতি চূড়ান্ত ছিল৷ চুল্লিতে ঢোকানোর আগে শিবানি বিশ্বাস বেঁচে ওঠে বলে দাবি পরিবারের৷ সঙ্গে সঙ্গে পরিবার সৎকার করতে বাধা দেয়৷ ঘটনাস্থলে আসে পুলিশ৷ পরিবারকে বুঝিয়ে রাজি করাতে না পারায়, পুলিশের অ্যাম্বুল্যান্সে করে তাঁকে ফের হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়৷ পরিবারের ইচ্ছানুযায়ী তাঁকে মধ্যমগ্রাম হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ কিন্তু সেখানে তাঁকে মৃত ঘোষণা করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ৷ শেষ হল সারাদিনের চিত্রনাট্য৷

Advertisement
-----