ভারতে তৈরি হলে তবেই বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র কিনবে সেনাবাহিনী

নয়াদিল্লি: বর্তমান পরিস্থিতিতে একগুচ্ছ অস্ত্র ও যুদ্ধযান কিনতে প্রস্তুত ভারত। ফাইটার জেট, সাবমেরিন, হেলিকপ্টার মিলিয়ে কয়েক বিলিয়ন ডলারের শপিং লিস্ট রয়েছে ভারতীয় সেনার হাতে। তবে শর্ত একটাই। যদি সব অস্ত্র ভারতে তৈরি হয়, তবেই চেকে সাইন করা হবে বলে জানিয়েছে সেনাবাহিনী। ভারত, যারা বিশ্বের সবথেকে বড় অস্ত্র আমদানিকারী হিসেবে পরিচিত, তারাই এবার শপথ নিয়েছে অস্ত্র তৈরি হবে কেবল দেশেই। এই উদ্যোগের ফলে, ভারতে কর্মসংস্থান অনেক বাড়বে এবং দেশে প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত প্রযুক্তি আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ভয়ঙ্কর! অত্যাধুনিক মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্রেও ধ্বংস হচ্ছে না এই ভয়ঙ্কর ট্যাঙ্ক

বিদেশি সংস্থাগুলিও ভারতের এই উদ্যোগে খুশি। তারাও চাইছে ভারতের মাটিতে অস্ত্র কিংবা যুদ্ধযান তৈরি করতে। ইউরোপের ‘এয়ারবাস’ সংস্থা চাইছে ভারতে প্যান্থার হেলিকপ্টার তৈরি করতে।ভারতকে তাদের গ্লোবাল-হাবে পরিণত করতে চাইছে। বর্তমানে এরা ফ্রান্সে হেলিকপ্টার তৈরি করে। লকহিড মার্টিনও ভারতে F-16 ফাইটার জেট তৈরি করতে উৎসাহী। জার্মানির ThyssenKrupp Marine Systems ও ফ্রান্সের নাভাল গ্রুপ চাইছে ভারতে সাবমেরিন তৈরির ১০ বিলিয়ন ডলারের কনট্রাক্ট পেতে। ভারতের অর্থনীতির ক্ষেত্রে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

- Advertisement DFP -

আরও পড়ুন: চিনের ওপর নজরদারি চালাতে ভারতের হাতে আসছে ২২টি মার্কিন ‘Guardian Drone’

কিছুদিন আগেই ভারতের মিসাইল পাওয়ারের কারখানা হল হায়দরাবাদ। আর এই শহরেই এবার তৈরি হবে ইজরায়েলি অ্যান্টি-ট্যাংক গাইডেড মিসাইল। `Spike MR’ নামের ওই মিসাইল দেশের মাটিতে তৈরি করার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। ভারতের ‘কল্যাণী স্ট্র্যাটেজিক সিস্টেম লিমিটেড’ ও ইজরায়েলের ‘রাফায়েল অ্যাডভান্স ডিফেন্স সিস্টেম’ যৌথ উদ্যোগে এই মিসাইল তৈরি করবে। মোট ২০০টি মিসাইল তৈরি হবে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: নিখুঁতভাবে টার্গেটে আঘাত করতে T-90 ট্যাংকে বসছে থার্ড জেনারেশন মিসাইল সিস্টেম

অন্যদিকে, রাশিয়ার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে Kamov-226T তৈরির জন্য ১০০ কোটি ডলারের একটি প্রজেক্ট শুরু হচ্ছে। ইন্দো-রাশিয়ান হেলিকপ্টার প্রাইভেট লিমিটেড তৈরির কথা চূড়ান্ত হয়েছে। এই প্রজেক্টে ৪৯.৫ শতাংশ শেয়ার থাকবে রাশিয়ান সংস্থা ‘সরটেক কর্প’-এর, আর ভারতের ‘হিন্দুস্থান অ্যারোনটিক্স লিমিটেডে’-এর থাকবে ৫০.০ শতাংশ শেয়ার। এই চুক্তি তৈরি হয়ে ২০০টি Kamov-226T. যার মধ্যে ৬০টি নেওয়ার হবে রাশিয়ারে কাছ থেকে। ৪০টি হেলিকপ্টার অ্যাসেম্বল করা হয়ে ভারতে। আর বাকি ১০০টি সম্পূর্ণভাবে তৈরি হবে ভারতের মাটিতে।

Advertisement
----
-----