নয়াদিল্লি: এ যেন অনেকটা যাদবপুর স্টাইল৷ হোক চুম্বনের মতোই হোক আলিঙ্গন ক্যাম্পেন করল কংগ্রেস৷ কংগ্রেস কর্মীরা এই ক্যাম্পেনের আয়োজন করেন মঙ্গলবার৷ দিল্লির কনট প্লেসে দিনভর চলল হোক আলিঙ্গন ক্যাম্পেন৷ কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে জড়িয়ে ধরার স্টাইল অনুসরণ করেই এই ক্যাম্পেনের আয়োজন করা হয়েছিল৷

কনট প্লেসে জড়ো হন প্রায় ৫০ জন কর্মী সমর্থক৷ তাদের হাতে ছিল পোস্টার, ব্যানার, প্ল্যাকার্ড৷ শ্লোগান ছিল, হিংসা হঠাও, দেশ বাঁচাও৷ প্রধানমন্ত্রীকে জড়িয়ে ধরার ছবি বড়ো ব্যানারে বানিয়ে একে অপরকে আলিঙ্গন করেন তাঁরা৷

Advertisement

শুধু কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরাই নন৷ সেখানে উপস্থিত স্থানীয় মানুষকেও এই ক্যাম্পেনে সামিল করা হয়৷
দিল্লির এক কংগ্রেস কর্মী অনিরুদ্ধ শর্মা বলেন কংগ্রেসের উদ্দ্যেশ্য দেশ জুড়ে হিংসার বাতাবরণ কাটিয়ে ভালবাসা ও শান্তির পরিবেশ গড়ে তোলা৷ আলিঙ্গন সেই উদ্দ্যেশেরই প্রকাশ৷ কংগ্রেস সভাপতি দেশে সুষ্ঠু পরিবেশ গড়ে তোলার চেষ্টা করছেন, পরিবর্তিত পরিস্থিতির পথ দেখাচ্ছেন কংগ্রেস সভাপতি৷ সেই পথেই হাঁটবে দেশ৷

তিনি আরও বলেন ভারতের আত্মাতেই রয়েছে সৌহার্দ্যের কথা৷ তাকেই তুলে এনেছেন রাহুল গান্ধী৷
এরআগে, অনাস্থা প্রস্তাব বিতর্কের মধ্যেই সংসেদে বিজেপি শিবিরকে তুমুল তুলোদনার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জড়িয়ে ধরেন রাহুল গান্ধী৷ এদিন রাহুল গান্ধীর বক্তব্য ঘিরে সরগরম হয়ে ওঠে লোকসভা। এদিন গণধোলাইয়ে মৃত্যু থেকে রাফালে চুক্তি। এদিন মোদী সরকারের উদ্দেশে চরম আক্রমণ শানান রাহুল। রাহুলের বক্তব্যের মধ্যে চরম শোরগোল শুরু হলে অধিবেশন কিছুক্ষণের জন্য মুলতুবি করে দেন স্পিকার।

----
--