নজির গড়ে দেশের বুকে তৈরি হচ্ছে প্রথম ‘অ্যাসমিট্রিক্যাল’ ব্রিজ

নয়াদিল্লি: দেশকে তাক লাগিয়ে উদ্বোধন হতে চলেছে দেশের প্রথম অ্যাসিমিট্রিক্যাল ব্রিজ৷ দিল্লিতে এই ব্রিজটি উদ্বোধন করা হবে চলতি বছরের অক্টোবরের মধ্যেই৷

শুক্রবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল অক্টোবরের মধ্যেই ব্রিজটির উদ্বোধন হয়ে যাওয়ার আশাপ্রকাশ করেন৷ নিকটবর্তী ওয়াজিরাবাদ ব্রিজের চাপ কমাতেই এই নতুন ব্রিজটি তৈরির সিদ্ধান্ত নেয় সরকার৷ তবে বহু প্রতিকূলতা ছিল৷

শুক্রবার একটি ট্যুইট করেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী৷ তিনি লেখেন আর কোনও কঠিন পরিস্থিতি নেই৷ দিল্লি সরকার মোট ব্যয়ভারের পুরো টাকাই মিটিয়ে ফেলেছে৷ ফলে ব্রিজ চালু হতে বেশি দেরি নেই৷

- Advertisement -

১৯৯৭ সালে এই ব্রিজের খসড়া পরিকল্পনা চূড়ান্ত করে দিল্লি সরকার৷ ১৯৯৭ সালে ওয়াজিরাবাদ সেতুতে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় ২২ জন স্কুল ছাত্র মারা যায়৷ তারপর থেকেই আরেকটি চওড়া ব্রিজ তৈরির পরিকল্পনা নিয়েছিল সরকার৷ সেই ভাবনা থেকেই এই ব্রিজটি তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়৷

তারপর যমুনা দিয়ে অনেক জল গড়িয়েছে৷ কিন্তু ব্রিজের কাজ শেষ হয়নি৷ কখনও লোকবলের অভাব, কখনও বা আর্থিক দুরবস্থার কারণে ব্রিজের কাজ আটকে গিয়েছে৷ প্রকল্পটি যখন শুরু হয়, তখন এর খরচ ধরা হয়েছিল ১১০০ কোটি টাকা৷ পরে তা বেড়ে দাঁড়ায় ১৫৭৫ কোটি টাকা৷

এই অতিরিক্ত টাকার যোগান দিতে গিয়েই সমস্যায় পড়ে দিল্লি সরকার৷ পিডব্লুডির পক্ষ থেকে ১২৪৪ কোটি টাকা প্রাথমিকভাবে মঞ্জুর করা হয়৷ ২০০৪ সাল থেকে পুরোদমে কাজ শুরু করা হয় ব্রিজের৷ ২০১০ সালের কমনওয়েলথ গেমসের আগে এর উদ্বোধন করা হয়ে যাবে বলে আশ্বাস দেওয়া হয়৷

কিন্তু তা হয়নি৷ ২০১৩ সালের পরবর্তী কাজ শেষ করার সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়৷ তা পিছিয়ে হয় ২০১৬ সালের জুন মাস৷ সেখান থেকে পিছিয়ে তা দাঁড়ায় ২০১৭ সালে জুলাই মাস৷ জুলাই থেকে পিছিয়ে ডিসেম্বরে কাজ শেষের ঘোষণা করা হয়৷ অবশেষে চূড়ান্ত ভাবে ২০১৮ সালের অক্টোবরে এি ব্রিজের উদ্বোধন হতে চলেছে৷

৬৭৫ মিটার লম্বা ও ৩৫.২ মিটার চওড়া এই ব্রিজটি দেশের প্রথম অ্যাসমিট্রিক্যাল ব্রিজ৷ যমুনা নদীর ওপর তৈরি হওয়া এই ব্রিজটি ওয়াজিরাবাদকে সংযুক্ত করছে৷ ব্রিজটি তৈরি হয়ে গেলে পুরনো ওয়াজিরাবাদ ব্রিজের ওপর যানবাহনের চাপ অনেকটাই কমবে বলে আশাবাদী প্রশাসন৷

Advertisement ---
---
-----