নয়াদিল্লি: দায়িত্ব ছেড়েই বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন সদ্য প্রাক্তন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার ওমপ্রকাশ রাওয়াত৷ তাঁর মন্তব্য অস্বস্তি বাড়াবে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে। তিনি এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে জানিয়েছেন, নোট বাতিলের পদক্ষেপ কালো টাকায় তেমন কোনও প্রভাবই ফেলতে পারেনি। কারণ ভোটের সময় যে বিপুল পরিমাণ টাকা নির্বাচন কমিশন বাজেয়াপ্ত করেছে, তার প্রেক্ষিতেই এমন মন্তব্য তাঁর৷

রবিবার রাওয়াতের জায়গায় আনুষ্ঠানিকভাবে দেশের নতুন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার হিসেবে কার্যভার গ্রহণ করেছেন সুনীল আরোরা। আর পদ ছেড়ে রাওয়াতের বিতর্কিত মন্তব্য করে বিভিন্ন মহলে তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ৷ তাঁর কথায়, সম্প্রতি, পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বাজেয়াপ্ত হওয়া অর্থের পরিমাণ প্রায় ২০০ কোটি। যা থেকে বোঝা যাচ্ছে ভোটের সময় এই টাকার জোগান এমন কোনও সূত্র থেকে আসছে, যারা অত্যন্ত প্রভাবশালী এবং এই ধরনের পদক্ষেপের (নোট বাতিল) কোনও প্রভাব তাদের উপর পড়েনি।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নোট বাতিলের কথা ঘোষণা করেছিলেন। তখন ৫০০ এবং ১০০০টাকার নোট বাতিলের মাধ্যমে কালো টাকা উদ্ধার হবে বলেই আশা ছিল প্রধানমন্ত্রীর৷ কিন্তু যদিও রিজার্ভ ব্যাংক জানিয়েছিল ওই টাকার ৯৯ শতাংশই ফিরে এসেছে৷ এবার প্রাক্তন মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের এদিনের মন্তব্য মোদিকে আরও কিছটা বেকায়দায় ফেলে দিয়ে বরং বিরোধীদের সুবিধা করে দিল৷

পাশাপাশি রাওয়াত মিজোরামের মুখ্য নির্বাচন আধিকারিকের অপসারণ নিয়েও মুখ খুলেছেন৷ তাঁর মতে, মিজোরামের মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক এসবি শশাঙ্কের অপসারণ প্রমাণ করছে, বড় করে প্রচার করলে খেলা ঘুরিয়ে দেওয়া যায়। সেক্ষেত্রে তিনি দোষী হোক না হোক৷

----
--