লাগাতার যোগাযোগেই কমবে সীমান্তে গুলি!

নয়াদিল্লি: একসঙ্গে সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে হাঁটতে চায় ভারত ও পাকিস্তান। পাক রেঞ্জার্স ও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর তিন দিনের ডিজি পর্যায়ের বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্তেই এসেছে দুই দেশ। জানা গিয়েছে, পাক রেঞ্জার্স তরফে উমর ফারুক বুরকি এবং বিএসএফ তরফে ডিকে পাঠক মিনিটসে স্বাক্ষর করেছেন। সেখানে লেখা হয়েছে, সীমান্তে গুলি ও অবৈধ অনুপ্রবেশ নিয়ে ইমেলে বা ফোনের মাধ্যমে দু’দেশের মধ্যে যোগাযোগ রাখা হবে। এমনকী সমস্ত রকমের তথ্য পাঠিয়ে এক দেশ আরেক দেশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সাহায্য করবে।

আন্তর্জাতিক সীমান্তে যাতে গুলি চালানো না হয় সে ব্যাপারে ঐক্যমতে পৌঁছেছে ভারত ও পাকিস্তান। উল্লেখ্য, গত বুধবার ভারতে এসেছে পাকিস্তান রেঞ্জার্সদের ১৫ জনের প্রতিনিধি দল। প্রতিনিধি দলের প্রধান হিসাবে এসেছেন মেজর জেনারেল উমর ফারুক বুরকি। তিনি পাক পাঞ্জাবের ডিরেক্টর জেনারেলও বটে। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর তরফে প্রতিনিধি হিসাবে ছিলেন ২২ জন। সীমান্তসুরক্ষা বাহিনীর প্রধান হিসাবে ছিলেন ডিরেক্টর জেনারেল ডিকে পাঠক।

বৈঠকে ভারতের তরফে তথ্য দিয়ে বলা হয়, উফা বৈঠকের পর থেকে সীমান্তে প্রায় ১০০ বার শান্তিচুক্তি লঙ্ঘন করে গুলি চালানো হয়েছে। ২০১৩ সালের পর থেকে সংখ্যাটা ক্রমশ বাড়ছে। ভারতের তরফে জানানো হয়েছে, ২০১৩ সালে সীমান্তে ৩৪৭ বার গুলি চালানোর ঘটনা ঘটেছে। ২০১৪ সালে ১৫৩ বার গুলি চালানর ঘটনা ঘটেছে। ২০১৫ সালে এখনও পর্যন্ত ৪৩০ বার শান্তিচুক্তি লঙ্ঘন করে গুলি চালানো হয়েছে।