দিঘা, মন্দারমনি কিংবা তাজপুরে যাওয়ার কথা ভাবছেন! তাহলে কিন্তু আগে থেকে হোটেলের জন্যে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করাতে হবে। না হলে কোনও হোটেলেই থাকার জন্যে ঘর পাবেন না।

আগামী ১ মার্চ থেকে এই তিনটি সমুদ্র সৈকত শহরে অনলাইন গেস্ট রেজিস্ট্রেশন পদ্ধতি চালু হচ্ছে। এবার থেকে হোটেল বুকিংয়ের ক্ষেত্রে এই নিয়মই মানতে হবে এই তিন এলাকার হোটেলগুলিকে।

Advertisement

এমনটাই সরকারি নির্দেশিকা। আর এই নির্দেশিকা অনুযায়ী, এখন থেকে প্রতিটি হোটেলে যে সমস্ত পর্যটক আসবেন তাঁদের প্রত্যেকের পরিচয়পত্র সঙ্গে আনতে হবে। বর্তমান নিয়মানুসারে একটি ঘরে একটি পরিবার থাকলে হোটেলের পক্ষ থেকে একজনেরই পরিচয়পত্র নেওয়া হয় এবং হোটেলের রেজিস্ট্রার খাতায় একজনের নাম, ঠিকানা, বয়স ইত্যাদি এবং সঙ্গে কতজন আছে তা লেখা হয়।

নতুন নিয়মে হোটেলের রেজিস্ট্রার খাতায় সব আগের মতো লেখা হলেও সরকারি একটি ওয়েবসাইটে পর্যটকদের প্রত্যেকের সচিত্র পরিচয়পত্র-সহ যাবতীয় নথি আপলোড করতে হবে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে। এই ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করতে কোনও টাকা লাগবে না। কিন্তু প্রত্যেক হোটেল মালিককে এর জন্য মাসে ১৫০ টাকা করে দিতে হবে।

সম্প্রতি দিঘা, মন্দারমনি, তাজপুরে হু হু করে নিত্য নতুন হোটেল তৈরি হচ্ছে। আর সেই সমস্ত হোটেলে শনি-রবি হলেই ভিড় বাড়ছে। বিভিন্ন ধরণের লোক আসছে। একই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে যৌনতা, ধর্ষণ, খুন এবং আত্মহত্যার মতো প্রবণতা। পর্যাপ্ত তথ্যের জন্যে অনেক সময় অপরাধের তদন্ত করতে পারেনা পুলিশ। আর এই সমস্যা সমাধানের জন্যে হোটেল মালিকদের নিয়ে সম্প্রতি বৈঠকে বসেন জেলা পুলিশ সহ সরকারি আধিকারিকরা। সেখানেই এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

----
--