দিলীপ ঘোষকে জাতীয়স্তরে কাজে লাগাতে পারে বিজেপি

সৌমিক কর্মকার, কলকাতা: জল্পনা সত্যি হবে নাকি কর্পূরের মতো উবে যাবে গুজব৷ এর উত্তর লুকিয়ে সময়ের গর্ভে৷
কিন্তু যতক্ষণ না তা হচ্ছে, ততক্ষণ বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদে রদবদল নিয়ে আলোচনা চলতে থাকছেই৷ আর সেই আলোচনায় উঠে আসছে দিলীপ ঘোষকে সরানোর কারণ প্রসঙ্গ৷

সকলেরই প্রশ্ন, আচমকা কেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদ থেকে খড়গপুরের বিধায়ককে সরানোর সম্ভাবনা তৈরি হল৷ এর সঙ্গেই অনিবার্যভাবে উঠে আসছে আরও একটা প্রশ্ন৷ তাহলে কি দিলীপের পারফরম্যান্সে খুশি নয় বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব?

যদিও বিজেপির নয়াদিল্লির একটি সূত্র থেকে উঠে এসেছে সম্পূর্ণ বিপরীত একটি তত্ত্ব৷ কী সেই তত্ত্ব? গেরুয়া শিবিরের ওই সূত্র জানাচ্ছে, রাজ্য সভাপতির পদে দিলীপের পারফরম্যান্সে মোদী-অমিতের থিঙ্কট্যাঙ্ক উচ্ছ্বসিত না হলেও একেবারেই অখুশি নয়৷ কারণ, দিলীপ ঘোষ বঙ্গ বিজেপির প্রথম রাজ্য সভাপতি যিনি ভোটে জিতেছেন৷ হারিয়েছেন খড়গপুরের মিথ কংগ্রেসের ‘চাচা’কে৷ যাকে বলে একেবারে জায়েন্ট কিলার৷ পাশাপাশি তাঁর আমলে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে ভোট বাড়িয়েছে বিজেপি৷ তাই তাঁর কৃতিত্বকে কোনওভাবেই যে খাটো করা যাবে না, তা বিলক্ষণ জানেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারা৷

- Advertisement -

বিজেপির ওই সূত্রের দাবি, আরএসএসে থাকাকালীনই দিলীপ ঘোষের সাংগঠনিক দক্ষতা বারবার প্রশংসিত হয়েছে৷ বিজেপির সাংগঠনিক দায়িত্ব পালেনর সময়ও সেই অভিজ্ঞতা কাজে লেগেছে৷ বঙ্গ-বিজেপির রাজ্য সভাপতি পদে বসে সেই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগাচ্ছেন দিলীপ ঘোষ৷ বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব চায়, দিলীপের সেই অভিজ্ঞতা কাজে লাগুক জাতীয়স্তরে৷ বিশেষ করে ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের আগে তা কাজে লাগাতে চায় মোদী-অমিতের থিঙ্কট্যাঙ্ক৷

বিজেপির ওই সূত্রের তরফে জানা গিয়েছে, তাই দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব দিলীপ ঘোষকে জাতীয়স্তরে ব্যবহার করতে চায়৷ সেই কারণেই আচমকা রাজ্য বিজেপিতে আচমকা রদবদলের ভাবনা বলেই জানা গিয়েছে৷ ওই সূত্রের দাবি, দিলীপ ঘোষকে যদি এখন রাজ্য সভাপতির পদ থেকে সরানো হয়, তাহলে তাঁকে কেন্দ্রীয় সম্পাদকের পদ দেওয়া হবে৷ তার পর তিনি অন্য রাজ্যেও ভোটের কাজে লাগতে পারবেন৷

যদিও বিজেপির কেন্দ্রীয় ও রাজ্য নেতৃত্ব এ বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন৷ আদৌ এমন কোনও সম্ভাবনা আছে কি না, তা নিয়ে কেউ কিছু বলতে নারাজ৷ বরং বারবার তাঁদের তরফে দিলীপ ঘোষকে বঙ্গ-বিজেপির রাজ্য সভাপতির পদ থেকে সরানোর বিষয়টি অস্বীকার করছেন৷

আর এই পরিস্থিততে আগামিকাল, শনিবার বিজেপির রাজ্য সম্মেলন রয়েছে৷ ওই সম্মলনে দলের রাজ্য নেতত্বের পাশাপাশি কেন্দ্রের একাধিক নেতা উপস্থিত থাকবেন৷ ফলে এখন দেখার সেখানে এই জল্পনার অবসান ঘটে৷ নাকি…৷

Advertisement
-----