দিনহাটা কলেজের হামলার ঘটনায় গ্রেফতার ৫

স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: দিনহাটা কলেজে ছাত্র সংঘর্ষের ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ৷ কোচবিহারের এই কলেজের ছাত্র সংঘর্ষের ঘটনায় এখনও থমথমে কলেজ চত্বর৷ ধৃত ৫ জনকে সাত দিনের পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর৷

বৃহস্পতিবার দিনহাটা কলেজে ঢুকে হামলা চালায় বহিরাগত কিছু দুষ্কৃতী৷ এই ঘটনায় আহত হন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের কর্মী অলোক নিতাই দাস নামে প্রথম বর্ষের এক ছাত্র৷ তাঁকে লোহার রড, বাটাম দিয়ে মারা হয় বলে অভিযোগ৷ প্রথমে তাঁকে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতাল ভরতি করা হয়৷ পরে স্থানান্তরিত করা হয় কোচবিহারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে৷ বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে তাঁকে৷

এদিনের এই ঘটনার রেশ গিয়ে পড়ে স্থানীয় একটি পুজো কমিটির অফিসের ওপর৷ সেই অফিসের চেয়ার টেবিলও ভাঙচুর হয়৷ এই কাজেও দুষ্কৃতীরা জড়িত বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের৷ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার রাতেই দিনহাটা থানায় ২০ জনের নামে অভিযোগ করা হয়।

- Advertisement -

এই তালিকায় রয়েছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রাক্তন জেলা সভাপতি সাবির সাহা চৌধুরীর নামও। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সাবির৷ তাঁর দাবি গত এক তারিখ থেকে তিনি কলকাতায় রয়েছেন৷ কিন্তু তাঁকে ফাঁসানোর জন্যই ষড়যন্ত্র করে অভিযোগে তাঁর নাম দেওয়া হয়েছে।

ঘটনার পর এলাকায় আসে বিশাল পুলিশবাহিনী। দিনহাটা কলেজের টিএমসিপি নেতা ভিকি মণ্ডল বলেন, বহিরাগতরা আচমকাই কলেজে হামলা চালায়৷ এক ছাত্রকে রীতিমত মারধর করা হয়। তাঁর অভিযোগ, কলেজে ভর্তির সময় টাকা তুলছিল এই বহিরাগতরা৷ তাঁর প্রতিবাদ করেছিলেন কলেজের ছাত্ররা৷ তার ফলেই এই হামলা।
যদিও এই ঘটনায় তৃণমূল ছাত্র পরিষদের গোষ্ঠী কোন্দলই প্রকাশ্যে এসেছে৷ সূত্রের খবর, বেশ কিছুদিন ধরে দিনহাটা কলেজের দখলকে কেন্দ্র করে ছাত্র পরিষদের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে ঝামেলা চলছে৷ আর সেই কারণেই এই হামলা।