সাতসকালে সাইকেলে চেপে হাজির জেলাশাসক!

ফাইল চিত্র৷

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: সাত সকালে সাইকেল চালিয়ে শহরের মশার আঁতুড় ঘরে হানা দিলেন বাঁকুড়ার জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস। ডেঙ্গু নিয়ে প্রশাসনের তরফে কড়া পদক্ষেপ নিতে এদিন তাঁর এই শহরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে হঠাৎ পরিদর্শন বলে জানা গিয়েছে। তাঁর এই সফরে সঙ্গে ছিলেন বাঁকুড়া সদর মহকুমা শাসক, পুরসভার চেয়ারম্যান মহাপ্রসাদ সেনগুপ্ত সহ সংশ্লিষ্ট এলাকার কাউন্সিলরা৷ তাঁরা সকলেই সাইকেল নিয়ে একের পর এক ওয়ার্ড পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনের পাশাপাশি ডেঙ্গু ও মশা বাহিত রোগ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

আরও পড়ুন: লালুর বিদ্রোহী শ্যালক পাপ্পু যাদবের উপর হামলা

সকালে ঘুম থেকে উঠেই চোখের সামনে স্বয়ং জেলাশাসক উমাশঙ্কর এসকে দেখে বিস্মিত শহরবাসী। এদিন তিনি পাট পুর জেল রোড, কেঠারডাঙ্গা, রেলওয়ে কলোনি সহ বেশ কিছু এলাকা ঘুরে দেখেন। শহরে এখনও সেইভাবে ডেঙ্গু সহ অন্যান্য মশা ও পতঙ্গ বাহিত রোগ থাবা বসাতে পারেনি। তবে মাঝে মধ্যে বেশ কিছু রোগী অজানা রোগ নিয়ে হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন।

- Advertisement -

এই ঘটনা শহরের বস্তি এলাকাতেই বেশি। সেই কারণে জেলাশাসক এদিন প্রথম দিনের সফরে বস্তি এলাকা পরিদর্শনের উপর বেশী জোর দেন। সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলি থেকে মজে যাওয়া পুকুর, নর্দমা, জমা জল, যত্রতত্র ঘুরে বেড়ানো শূকর ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ দেখে বিস্মিত জেলাশাসক। এদিন তিনি পুরসভাকে বিষয়টি দ্রুততার সঙ্গে দেখার নির্দেশ দেন।

আরও পড়ুন: টলিপাড়ার হটকেক ‘ভিলেন’ অঙ্কুশের নয়া লুক

পরে জেলাশাসক উমাশঙ্কর এস সাংবাদিকদের বলেন, তিনটে পুকুরের মালিকদের পুকুরগুলি কুড়ি দিনের মধ্যে সংস্কারের জন্য বলা হয়েছে। নির্দিষ্ট সময়সীমা পেরিয়ে যাওয়ার পর সংস্কার না হলে পুরসভাই সেই কাজ করবে। একই সঙ্গে প্রশাসন সেইগুলির দখল নেবে। এছাড়াও বস্তি এলাকায় যত্র তত্র শূকর চাষ করা যাবেনা৷ বাড়ির মধ্যে শেড করে কেউ শূকর চাষ করতেই পারেন। বাইরে শূকর ঘুরে বেড়ালে পুরসভা তা ধরে বিক্রি করে দেবে। এই ধরণের অভিযান ধারাবাহিকভাবে চলবে বলেও তিনি জানান।

আরও পড়ুন: ব্রিজ ভাঙলেও তার নীচেই সংসার পেতেছে কলকাতা

বাঁকুড়া শহরকে সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন রাখতে জেলাশাসকের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন শহরবাসী। এই প্রথম কোন জেলাশাসক নিজে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ঘুরে সরজমিনে দেখে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দিচ্ছেন। এই ঘটনা আগে কখনও দেখেছেন বলে প্রবীণ শহরবাসীরাও মনে করতে পারলেননা।

Advertisement ---
---
-----