কাবুল: আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলে গজনী প্রদেশের খাজা ওমারি জেলায় নিহত হলেন গভর্নরসহ ১২ জন৷ তালিবান হামলায় এদের মৃত্যু হয়৷ সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার ভোরে জেলা সদর দফতরে এই হামলা চালানো হয়। এই সময় তালিবান জঙ্গিরা বিল্ডিং-এর ভেতর ঢুকে গুলি চালাতে শুরু করে৷ ঘটনাস্থলেই লুটিয়ে পড়েন গভর্নর আলি দোস্ত শামস৷ এছাড়াও মৃত্যু হয় আরও ১২ জন ব্যক্তির৷ এদের মধ্যে সাতজনই পুলিশ কর্মী বলে খবর৷ বৃহস্পতিবার সকালেই এই হামলা চলে৷

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম টোলো নিউজ জানাচ্ছে আহত হয়েছেন আরও ৯জন গোয়েন্দা আধিকারিক৷ সরকারি সূত্রে খবর, জেলা সদর দফতরের চারপাশের এলাকাও লন্ডভন্ড করেছে জঙ্গিরা৷

এই হামলার পরে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে চলে আসে বায়ুসেনা৷ শুরু করে পালটা হামলা৷ ২৭ জন জঙ্গিকে খতম করা সম্ভব হয়েছে বলে বেসরকারি সূত্র জানাচ্ছে৷তালিবান পরে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে জানিয়েছে খাজা ওমারি জেলার দখল নিয়েছে তারা৷ যদিও সরকারি সূত্রে এই খবরের সত্যতা স্বীকার করা হয়নি৷

দিন কয়েক আগেই স্থানীয় একটি হাসপাতালের কাছে আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় মৃ্ত্যু হয় ২৯ জনের৷ বিস্ফোরণের ঘটনায় আহত হন ৫২ জন৷ আফগান প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, পার্সি বর্ষবরণ উদযাপনের সময়ই এই বিস্ফোরণ ঘটে৷ পশ্চিম কাবুলের কার্ট-ই সাখি এলাকায় আলি আবাদ হাসপাতালের সামনে এই আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটে৷

তবে আরও বড় বিস্ফোরণ ঘটনোই যে লক্ষ্য ছিল তা জানিয়েছে আফগান প্রশাসন৷ আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ মন্ত্রকের মুখপাত্র নসরৎ রাহিমি বলেন, ‘‘মসজিদের সামনেও পার্সি বর্ষবরণ নভরোজ চলাকালীন বিস্ফোরণের চেষ্টা করা হয়৷’’ তবে ব্যর্থ হয়েই হাসপাতালের সামনে আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে৷ হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামিক স্টেট জঙ্গি গোষ্ঠী৷

----
--