ধর্ষিতাকে একঘরে করার হুমকির রিপোর্ট চাইলেন জেলাশাসক

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: ধর্ষিতাকে একঘরে করার হুমকি৷ আর সেই হুমকির অভিযোগ পেয়েই নড়েচড়ে বসল বীরভূম জেলা প্রশাসন৷ এ নিয়ে রিপোর্ট চাইলেন জেলাশাসক মৌমিতা বসু গোদারা৷

নির্যাতিতা মহম্মদবাজারের চরিচা গ্রামের বাসিন্দা৷ মাস তিনেক আগে তিনি গণধর্ষণের শিকার হন৷ পুলিশ অভিযুক্ত তিন যুবককে গ্রেফতার করে৷ তারা এখন জেল হেফাজতে রয়েছে৷

আরও পড়ুন: রাফায়েলের কনট্রাক্ট চেয়েছিলেন সোনিয়ার জামাই, বিস্ফোরক বিজেপি

- Advertisement -

এই পরিস্থিতিতে সম্প্রতি গ্রামের মাতব্বররা সালিশি সভা বসায়৷ নির্যাতিতাকে ধর্ষণের অভিযোগ ফিরিয়ে নিতে চাপ দেওয়া হয়৷ তিনি ও তাঁর পরিবার রাজি না হওয়ায় একঘরে করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়৷

গ্রামের কারও সঙ্গে কথা বললে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে হুমকি দেওয়া হয় ওই নির্যাতিতাকে৷ পাশাপাশি জানানো হয় গ্রামের কেউ এসে কথা বললে নির্যাতিতার পরিবারকে দশ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে৷

আরও পড়ুন: সম অধিকার চাইছেন ধর্মবিদ্বেষে বিপন্ন পাকিস্তানের সংখ্যালঘুরা

এই পরিস্থিতিতে সোমবার পুলিশ ও প্রশাসনের দ্বারস্থ হলেন নির্যাতিতা৷ সেই অভিযোগ পেয়েই ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন জেলাশাসক৷ তিনি বলেন, ‘‘ওই নির্যাতিতা মহিলা আমার কাছে এসেছিল। আমি তাকে কালকের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে একটি লিখিত অভিযোগ দিতে বলেছি৷ আমি মহম্মদবাজারের বিডিওকে বলেছি ওই নির্যাতিতা পরিবার যাতে জল পায়৷ তার ব্যবস্থা করে দিতে এবং আগামিকাল একটি টিমকে আমি পাঠাচ্ছি ওই নির্যাতিতা পরিবার সঙ্গে কথা বলতে।’’

আরও পড়ুন: বড়সড় সাফল্য! ১৫ আইএস জঙ্গিকে খতম করল নিরাপত্তা বাহিনী

Advertisement
----
-----