স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মন্ত্রিসভায় রদবদলের পাশাপাশি রদবদল জেলাশাসকদের। আট জেলার জেলা শাসক বদল হল। জেলাগুলি হল দক্ষিণ দিনাজপুর, উত্তরদিনাজপুর, বীরভূম, বাঁকুড়া, আলিপুরদুয়ার, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, হুগলি।

এ যেন একেবারে লোকসভা ভোটের আগেই গুটি সাজানোর কাজ চলছে৷ লোকসভা ভোট আসতে আর মাত্র হাতেগোনা কয়েকটা দিন বাকি৷ আর তারই মধ্যে হয়ে চলেছে মন্ত্রীদের রদবদল৷ আগেই সংবাদ শিরোনামে এসেছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রী সভা৷ বিষয় ছিল শোভন চট্টোপাধ্যায় ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷

কয়েকদিন আগেই বেশ গুরুগম্ভীর দায়িত্বের পদে নাম যোগ হয়েছে শুভেন্দু অধিকারী, সৌমেন মহাপাত্র, সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও ময়ল ঘটকের৷ ইতিমধ্যেই মন্ত্রী সভার তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ তবে মঙ্গলবারের পর বুধবারও রাজ্য মন্ত্রিসভায় বড়সড় রদবদল ঘটানো হল। জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতর হারালেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। তার বদলে তাঁকে দেওয়া হল জলসম্পদ দফতর। জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দফতরের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে মলয় ঘটকের কাঁধে।

দায়িত্ব কমল শোভন চট্টোপাধ্যায়েরও। তাঁর হাতে থাকা পরিবেশ দফতরের দায়িত্ব দেওয়া হল শুভেন্দু অধিকারীকে। অর্থাৎ পরিবহনের পাশাপাশি এবার পরিবেশের দায়িত্বেও থাকছেন শুভেন্দু। সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত ভোটের পরই মন্ত্রিসভার অন্দরে এহেন রদবদলকে কেন্দ্র করে দলের অন্দরে জোর চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ যদিও এর আগে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নিরাপত্তা ক্যাটাগরিতেও থাবা বসিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ওয়াকিবহাল মহলের মতে, জঙ্গলমহলে পঞ্চায়েত ভোটে ধাক্কা, বিবাহ বিচ্ছেদকে কেন্দ্র করে কলকাতার মেয়র তথা পরিবেশ ও দমকল মন্ত্রীর কেচ্ছা- এসবের জেরেই এই রদবদল৷

একইভাবে জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরটি হারালেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়৷ তবে অপেক্ষাকৃত গুরুত্বপূর্ণ দফতর জলসম্পদের ভার দেওয়া হল তাঁকে৷ জনস্বাস্থ্য কারিগরি দফতরের দায়িত্ব দেওয়া হল শ্রম ও আইন মন্ত্রী মলয় ঘটককে৷ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত থেকে সেচ দফতর কেড়ে নিয়ে ওই বিভাগের দায়িত্বে আনা হল জলসম্পদ বিভাগের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রকে৷ রাজীবকে নিয়ে যাওয়া হল অনগ্রসর উন্নয়ন দফতরে৷ সূত্রের খবর, সেচ বিভাগে আশানুরূপ কাজ না হওয়ায় অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ দফতর অনগ্রসর উন্নয়নে স্থানান্তরিত করা হল রাজীবকে৷

তবে কিন্তু শুধু মন্ত্রী স্তরেই নয়৷ ব্যাপক রদবদল ঘটানো হয়েছে আমলা স্তরেও। দক্ষিণ দিনাজপুর, উত্তরদিনাজপুর, বীরভূম, বাঁকুড়া, আলিপুরদুয়ার, পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, হুগলি সহ মোট ৮ জন জেলাশাসককে বদলি করা হয়েছে। একইসঙ্গে বদলি করা হয়েছে ৫ সচিবকেও৷ এ থেকে বলা যেতেই পারে লোকসভা ভোটের আগেই কি তাহলে এই পরিবর্তন?

----
--