• শেষকৃত্যর অনুষ্ঠান ঘিরে তৈরি হওয়া বিতর্ক নিয়ে মুখ খুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, দেশের অন্যতম রাজনেতার মৃত্যু দুঃখজনক। বড় নেতার মৃত্যুতে সমাধিস্থল নিয়ে রাজনীতি করা উচিত নয়।

  • ইতিমধ্যে তামিলনাড়ু পৌঁছে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
  • এই ইস্যুতে ডিএমকে-র পাশে দাঁড়িয়েছে সব দল। রাহুল গান্ধী, ইয়েচুরি, রজনীকান্ত ইতিমধ্যেই আবেদন জানিয়েছেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রীর কাছে।

রাত বাড়তেই উত্তপ্ত চেন্নাই৷ করুণানিধির শেষকৃত্যর অনুষ্ঠান ঘিরে গোলমাল শুরু হয়েছে৷ বিক্ষোভ শুরু হয়েছে৷ সকলের দাবি, মেরিনা মেমোরিয়ালে সমাধিস্থ করতে হবে কলাইনারকে৷

কারণ, সেখানেই সমাধিস্থ করা হয়েছে করুণানিধির রাজনৈতিক গুরু আন্নাদুরাইকে৷ আন্নার পাশেই সমাধিস্থ করা হোক করুণানিধিকে৷ এমনটাই চাইছেন তাঁর অনুগামীরা৷

আরও পড়ুন: জলমগ্ন বাঁকুড়া চিন্তায় ফেলেছে প্রশাসনকে

তাই ডিএমকের তরফে মেরিনাবিচেই দলের সভাপতির মরদেহ সমাধিস্থ করতে চাওয়া হয়েছিল৷ কিন্তু তামিলনাড়ুর এআইডিএমকে সরকার সেই অনুরোধ ফিরিয়ে দিয়েছে বলে খবর৷ তারা জানিয়েছে, আইনি জটিলতায় সেখানে জায়গা দেওয়া যাবে না৷

প্রধান বিচারপতির বাড়ির সামনে আইনজীবীরা।

প্রতিবাদে পথ অবরোধ হয়েছে৷ ডিএমকে সমর্থকরা তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী ও পন্নিরসেলভমের বাসভবনের উদ্দেশে রওনা দিয়েছে৷ সেখানেই বিক্ষোভ হতে পারে৷

আরও পড়ুন: আন্নার পাশে সমাধিস্ত করতে চেয়ে রাতেই আদালতে করুণানিধির দল

এই পরিস্থিতিতে মাদ্রাজ হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হয়েছে ডিএমকে-র তরফে৷ আর কিছুক্ষণ পর রাত সাড়ে দশটাতেই শুনানি৷ সেখানেই ঠিক হবে কোথায় সমাধিস্থ করা হবে কলাইনারকে৷

আরও পড়ুন: বাগানে ফিরেই হ্যামলিনের বাঁশিওয়ালা মেহতাব

----
--