স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: দীর্ঘদিন ধরেই বেতন সমস্যায় চূড়ান্ত ভুক্তভোগী দিঘায় কর্মরত নুলিয়ারা। পুজোর সময়ও তাঁরা বেশ কয়েক মাসের বেতন হাতে পাননি। বৃহস্পতিবার দিঘার প্রশাসনিক বৈঠকে নুলিয়াদের এই বকেয়া বেতন সমস্যা নিয়ে চূড়ান্ত ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্নের উত্তরে জেলা শাসক রশ্মি কমল জানান, সেপ্টেম্বর থেকে বাকি রয়েছে নুলিয়াদের বেতন। প্রতি মাসে রিকুইজিশন দিলে তবেই বেতন পান নুলিয়ারা। এরপরেই ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রীর উত্তর, কেন লাল ফিতের ফাঁসে আটকে থাকে নুলিয়াদের বেতন। যারা নিজর জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পর্যটকদের প্রাণ বাঁচান৷ তাদের প্রতি মাসে কেন রিকুইজিশন দিতে হবে। কেনই বা বেতন না পেয়ে তাঁদের মাসের পর মাস ভুক্তভোগী হতে হয়।

Advertisement

পড়ুন: নাবালিকা পরিচারিকাকে মারধোরের অভিযোগে আটক শিক্ষিকা

মুখ্যমন্ত্রীর এই প্রশ্নের উত্তরে জেলা শাসক জানান, স্ট্যান্ডিং অর্ডার পেলে তবেই বেতন সময় মতো রিলিজ করা যাবে। বছরভর জীবন বিপন্ন করে পর্যটকদের বাঁচিয়েও পুজোর মুখে চার মাস বেতনহীন দিঘার নুলিয়ারা৷ এই কথায় সঙ্গে সঙ্গেই মুখ্যমন্ত্রী নুলিয়াদের বেতন নিয়ে স্ট্যান্ডিং অর্ডার দেন। এখন থেকে নুলিয়াদের প্রতিদিন ৩০০ টাকা হিসেবে মাসের কমপক্ষে ২৫ দিনের মজুরি প্রতি মাসের ১ তারিখে দিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত গত পুজোর সময় প্রথমবার প্রকাশ্যে আসে নুলিয়াদের বেতন সমস্যা৷ জানা যায়, পুজোর সময় প্রায় চার মাসের বেতন বকেয়া ছিল দিঘা ও সংলগ্ন এলাকায় কর্মরত নুলিয়াদের। সেই রেশ এখনও চলছে। জেলা শাসকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বেতন বকেয়া রয়েছে নুলিয়াদের। তখনই বিষয়টি নিয়ে নিজের ক্ষোভ চেপে রাখতে পারেননি মুখ্যমন্ত্রী।

----
--