সিপিএমপন্থীদের ‘চক্রান্ত-অপপ্রচারে’ নির্মল-গান্ধীগিরি

ফাইল ছবি৷

বিশ্বজিৎ ঘোষ, কলকাতা: ‘জ্যান্ত পুতুল’ পোড়ানোর পর এ বার গান্ধীগিরি!

সিপিএম প্রভাবিত চিকিৎসকদের সংগঠনের সদস্যদের ‘চক্রান্ত’ এবং ‘অপপ্রচার’ রুখতে, এ বার গান্ধীগিরির পথে হাঁটতে চাইছেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রভাবিত চিকিৎসকদের সংগঠনের সভাপতি নির্মল মাজি৷ মঙ্গলবার সল্টলেকে রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের অফিসে তিনি বলেন, ‘সিপিএমপন্থী চিকিৎসকদের চক্রান্ত এবং অপপ্রচার রুখতে এ বার তাঁদের গাঁদাফুলের মালা পরিয়ে এবং রাজভোগ খাইয়ে সম্বর্ধনা জানানো হবে৷’

স্বাভাবিকভাবেই রাজ্যের শাসকদলের প্রভাবিত চিকিৎসকদের সংগঠন ‘প্রোগ্রেসিভ ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন’ (পিডিএ)-এর সভাপতির এই ধরনের মন্তব্যকে কেন্দ্র করে, ফের সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করেছে এ রাজ্যের চিকিৎসক মহলে৷ সিপিএম প্রভাবিত চিকিৎসকদের সংগঠন ‘অ্যাসোসিয়েশন অফ হেলথ সার্ভিস ডক্টরস, ওয়েস্ট বেঙ্গলে’র সভাপতি গৌতম মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘পিডিএ-র সভাপিত যে সব কথা বলছেন, একজন চিকিৎসক হিসেবে এই ধরনের কথা কেউ বলতে পারেন না৷’

- Advertisement -

এ দিন সল্টলেকে রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের অফিসে একটি বিশেষ বৈঠক ডাকা হয়েছিল৷ সম্প্রতি নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে সিপিএম প্রভাবিত চিকিৎসকদের সংগঠনের এক সভার পর, ওই হাসপাতালেই পিডিএ-র তরফে পাল্টা আক্রমণের পথে গিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যে জড়িয়ে পড়েছেন রাজ্যের শাসক দলের বিধায়ক তথা ওই সংগঠনের সভাপতি নির্মল মাজি৷ বিতর্কিত ওই মন্তব্যের জেরে সমালোচনার ঝড় বইতে শুরু করে সংবাদমাধ্যমেও৷ ওই মন্তব্যের পাশাপাশি জাপানিস এনসেফালাইটিসের জেরে উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের যে চারজনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে, তাও এ দিনের ওই বিশেষ বৈঠকে অন্যতম আলোচ্য বিষয় হয়ে ওঠে৷

এ দিনের বৈঠক শেষে নির্মল মাজি বলেন, ‘রাজ্যের ৮৬ শতাংশ চিকিৎসকের ভোটে আমরা জিতেছি৷ এ রাজ্যের সরকারি চিকিৎসা পরিষেবার মানোন্নয়নে যে কর্মকাণ্ড চলছে, তা বানচাল করতে পাঁচ থেকে সাত শতাংশ চিকিৎসক চক্রান্ত এবং অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন৷ সিপিএমপন্থী ওই চিকিৎসকরা কর্মচুরি করছেন৷’ পরে অবশ্য ওই চিকিৎসকদের শতকরা হার পাঁচ-সাত থেকে কমিয়ে দুই-তিনের কথা বলেছেন নির্মল মাজি৷ একই সঙ্গে এ দিন রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের সভাপতি নির্মল মাজি অভিযোগ করেন, ‘হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডের মতো ঘটনার পিছনেও রয়েছে সিপিএমপন্থী চিকিৎসকদের ইন্ধন৷’

এ দিন এখানেই থেমে থাকেননি পিডিএ-র সভাপতি৷ সিপিএম প্রভাবিত চিকিৎসকদের সংগঠনের নেতাদের নাম করে নির্মল মাজি বলেন, ‘গৌতম মুখোপাধ্যায়, সত্যজিৎ চক্রবর্তী, তমোনাশ চৌধুরিরা সুবিধাজনক স্থানে বদলির জন্য আমার হাতে-পায়ে ধরেছেন৷ অথচ, চিকিৎসা পরিষেবার মানবিক মুখের বিরুদ্ধে তাঁরা চক্রান্ত করছেন৷ তাঁরা কাজে ফাঁকি দিচ্ছেন৷’ পিডিএ-র সভাপতির বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে ইতিমধ্যেই অভিযোগ জানিয়েছে সিপিএম প্রভাবিত চিকিৎসকদের সংগঠন৷ এ দিন ওই সংগঠনের সভাপতি গৌতম মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘পিডিএ-র সভাপতি সর্বৈব মিথ্যে কথা বলছেন৷রাজ্যের যেখানেই আমাদের বদলি করা হবে, সেখানেই আমরা কাজ করবো৷ সুবিধাজনক জায়গায় বদলির জন্য আমরা পিডিএ-র সভাপতির হাতে-পায়ে ধরেছি, চ্যালেঞ্জ করছি, এই ধরনের কথা নির্মল মাজি প্রমাণ করে দেখান৷’

________________________________________________________

Advertisement ---
-----