স্বাধীনতা দিবসে অহঙ্কারি ডোনাল্ড ট্রাম্প

ওয়াশিংটন: ‘আমেরিকাই পৃথিবীর ইতিহাস বদলেছে, আমরাই অন্যান্য দেশকে পথ দেখিয়েছি’-আমেরিকার স্বাধীনতা দিবসে ঠিক এই বার্তা দিয়েই নিজের আত্ম অহঙ্কারের জানান দিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প৷

২৪২ তম মার্কিন স্বাধীনতা দিবসে ওয়াশিংটন আলোকিত৷ সামরিক বাহিনীকে উদ্দেশ্য করে এদিন ভাষণ রাখেন ট্রাম্প৷ সেনাদের আরও সতর্ক হওয়ার বার্তা দিয়ে ট্রাম্প জানান, শত্রুকে কড়া জবাব দিতে প্রস্তুত আমেরিকা৷ স্বাধীনতা দিবসে সেই শপথ আরও একবার নিক দেশের সেনারা৷

আরও পড়ুন- ট্রাম্পকে চিন্তায় রেখে ইরানি তেল বাণিজ্যের পক্ষে EU

- Advertisement -

হোয়াইট হাউস এদিন ছিল ছুটির মেজাজে৷ প্রায় ১০০ সামরিক আধিকারিক ও তাঁর পরিবার ছিলেন আমন্ত্রিত৷ হোয়াইট হাউসের বৃহৎ বারান্দা থেকে ফার্স্ট লেডিকে পাশে নিয়ে ভাষণ দিলেন ট্রাম্প৷ বললেন-‘আমরা স্বাধীন হয়েছিলাম সাহসী দেশপ্রেমিকদের জন্য, তাঁদের সম্মান জানিয়েই আমেরিকা নতুন অধ্যায় শুরু করে, যা এখনও বহাল, আমরাই পৃথিবীর সমস্ত শক্তিশালীদের যোগ্য জবাব দিয়েছি৷’

আরও পড়ুন- ট্রাম্পের নীতির ধাক্কায় ‘দ্বিতীয় গৃহযুদ্ধে’র মুখে আমেরিকা

১৭৭৬ সালের ৪ জুলাই স্বাধীন হয় আমেরিকা৷ ব্রিটিশদের থেকে মুক্ত হয়ে ১৩টি উপনিবেশ নিয়ে গড়ে ওঠে স্বাধীন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷ আতসবাজি, কার্নিভাল, পিকনিকের মাধ্যমে দিনটি উদযাপন করে হোয়াইট হাউস সহ গোটা আমেরিকা৷ আর সেই মতনই আলোর জৌলসে সাদা বাড়ি হয়ে ওঠে রঙিন৷ হোয়াইট হাউসে এইদিন প্রায় ১৫০০ সামরিক বাহিনীর পরিবার আমন্ত্রিত ছিল৷ অন্তত ৫,৫০০ মানুষ আতসবাজির খেলা দেখাতে আলাদা ভাবে আসেন৷ ছিল ৯০ মিনিটের একটি কনসার্ট৷ গান গাইলেন আমেরিকান আইডলের প্রথম সারির গায়ক জনি ব্রেনস৷

আরও পড়ুন- ভারত সফরের দ্বিতীয় দিনে মন্দির-মসজিদ-গুরদোয়ারায় গেলেন ট্রাম্পের দূত

সবার নজরই ছিল মার্কিন প্রেসিডেন্টের ভাষণের উপর৷ ভাষণের বেশিরভাগটাই ছিল ট্রাম্পের আমলে কতটা এগিয়েম আমেরিকা৷ দেশের সেনাদের উদ্দেশ্যে ট্রাম্পের বার্তা-‘সামরিক বাহিনীর সাহসকে সম্মান জানাই, আরও সতর্ক ও দৃঢ় হতে হবে৷’ সেনাদের প্রশংসার মাঝেও ট্রাম্পের বার্তা স্পষ্ট- আমেরিকাই বিশ্বে সবচেয়ে শক্তিশালী দেশ, ট্রাম্পের আমলে যা আকাশচুম্বি৷

Advertisement ---
---
-----